নব্বইয়ের দশকে যখন কারোর বাড়িতে ‘রামায়ণ’ কিংবা ‘মহাভারত’ ধারাবাহিক চালু হত, তখনই টিভির সামনে ঠায় বসে থাকতে দেখা যেত প্রত্যেকটি মানুষকে। এই দুই ধারাবাহিক চুম্বকের মতো টিভির সঙ্গে আটকে রাখত প্রত্যেককে। এবার সেই স্মৃতি উস্কে দিতেই পুরনো ‘ওষুধ’ নতুনভাবে প্রয়োগ করতে চলেছে প্রসার ভারতী।

করোনাভাইরাসের মোকাবিলায় দেশজুড়ে ২১ দিনে লকডাউনের ডাক দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। এই লকডাউনের সময় বাড়ি থেকে অযথা কাউকে বাইরে বেরোতে বারণ করেছেন খোদ প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু তাতেও দেশজুড়ে বাজার হাটে লম্বা লাইন দিয়ে ভিড় করতে দেখা যাচ্ছে সাধারণ মানুষকে। আর এর ফলেই করোনার থার্ড স্টেজ অর্থাৎ কমিউনিটি স্প্রেড ছড়ানোর আশঙ্কায় রয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। তাই তার হাত থেকে সাধারণ মানুষদের বাঁচাতে সরকারের ভরসা করছে রামেই। সূত্রের খবর, লকডাউনের এই ২১ দিন মানুষ যাতে বাড়িতে থাকেন সেই কারণে দূরদর্শনের পর্দায় ফের প্রদর্শিত হতে চলেছে রামানন্দ সাগরের ‘রামায়ণ’ ও বিআর চোপড়ার ‘মহাভারত’।

প্রসার ভারতীর সিইও শশী শেখর ট্যুইট করে এই কথা জানিয়েছেন। পাশাপাশি তিনি এও জানিয়েছেন, দীর্ঘদিন ধরেই ভারতের নানা প্রান্ত থেকে ‘রামায়ণ’ ও ‘মহাভারত’ দেখানোর জন্য একগুচ্ছ অনুরোধ আসছিল তার কাছে। আর এখন এই লকডাউনের কথা মাথায় রেখেই প্রসার ভারতী সিদ্ধান্ত নিয়েছে খুব শীঘ্রই দূরদর্শনের পর্দায় ফুটে উঠবে এই দুই ইতিহাস সৃষ্টিকারী ধারাবাহিক। যেহেতু ভারত বর্ষের একাধিক জায়গার মানুষ এখনও পর্যন্ত নেটফ্লিক্স কিংবা হটস্টারের মতো ডিজিট্যাল প্ল্যাটফর্মে ঢোকার রাস্তা পায়নি। তাই এই সময়ে আবার হিট হতে পারে এই ধারাবাহিক।

একদিকে করোনার জন্য যেমন বন্ধ হিন্দি থেকে সমস্ত ভাষার ধারাবাহিকের শ্যুটিং। বেশিরভাগ চ্যানেলকে ভরসা রাখতে হচ্ছে রিপিট টেলিকাস্ট তাই লক ডাউনের বাজারে বাজিমাত করতে পারে প্রসার ভারতীর এই উদ্যোগ, মত বিশেষজ্ঞদের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here