news bengali

মহানগর ওয়েবডেস্ক: আগের মাসেই স্বয়ং রাশিয়ান প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বিশ্বের প্রথম করোনা ভ্যাকসিন আবিষ্কারের কথা ঘোষণা করেছিলেন। আর এবার রাশিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী মিখাইল মুরাস্কো জানানলেন, ওই ভ্যাকসিন যেসব ব্যক্তিদের দেওয়া হয়েছিল, তাদের প্রতি সাতজনের মধ্যে একজনের দেহে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। দ্য মস্কো টাইমসে প্রকাশিত এক রিপোর্টে এমনটাই দাবি করা হয়েছে।

যদিও তাঁর দাবি, এই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নিয়ে চিন্তার কিছু নেই। কারও কারও দেহে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে পারে, এমনটা তারা আগেই আন্দাজ করেছিলেন। রাশিয়ার করোনা ভ্যাকসিন ‘স্পুটনিক V’ যাদের দেহে প্রয়োগ করা হয়েছিল তাদের মধ্যে কিছু ব্যক্তির মধ্যে দুর্বলতা, মাংসপেশিতে ব্যাথা বা মাঝে মাঝে জ্বর আসার মতো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা গিয়েছে। যদিও সেইসব লক্ষণ একদিনের বেশী স্থায়ী হয়নি।

অন্যদিকে, বুধবার রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড (আরডিআইএফ)এর তরফে এক বিবৃতিতে জানানো হয়, অনুমোদন মিললেই ভারতীয় সংস্থা ডক্টর রেড্ডি ল্যাবরেটরিকে ১০ কোটি ডোজের টিকা দেবে আরডিআইএফ। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ২০২০ সালের শেষভাগে পাঠানো হবে এই টিকা। আরডিআইএফ সংস্থার প্রধান ক্লিরিক দিমিত্রেভ বলেন, ‘আমরা খুশি ভারতের ডক্টর রেড্ডি ল্যাবের সঙ্গে যুক্ত হয়ে। বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাসের ফলে প্রবাহিত ভয়াবহ অবস্থা মধ্যে দিয়ে যাওয়া দেশগুলির মধ্যে অন্যতম ভারতও। আমাদের বিশ্বাস, করোনাযুদ্ধে ভারতকে সুরক্ষিত এবং বৈজ্ঞানিকভাবে বৈধ বিকল্প দেবে আমাদের অ্যাডিনোভাইরাস ডুয়াল ভাইরাস প্ল্যাটফর্ম।’

ডক্টর রেড্ডির কো-চেয়ারম্যান ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর জি ভি প্রসাদ বলেন, ‘রাশিয়ার ভ্যাকসিনের প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল যথেষ্ট আশানুরূপ। ভারতীয় নিয়ন্ত্রকদের প্রয়োজনীয়তা পূরণে ভারতে তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল শুরু করব আমরা।’ উল্লেখ্য, স্পুটনি ভি রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রক এবং আরডিআইএফ-এর সঙ্গে হাত মিলিয়ে ভ্যাকসিনটি তৈরি করেছে গামালিয়া সায়েন্টিফিক রিসার্চ ইনস্টিটিউট অফ এপিডেমিয়োলজি অ্যান্ড মাইক্রোবায়োলজি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here