ভয়ানক ‘হাগিবিস’এর থাবায় জাপান, প্রাণ হারালেন ১১ জন, মৃতের সংখ্য়া বাড়ার আশঙ্কা

0
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ১৯৫৮ সালে এইরকম ভয়াবহ টাইফুনের জেরে জাপানে প্রাণ হারিয়েছিলেন প্রায় ১২০০ মানুষ৷ সেই ভয়ঙ্কর স্মৃতি আবারও ফিরে এল৷ টাইফুন হাগিবিসের কোপে পড়ল জাপান৷ এই ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে এখনও পর্যন্ত ১১ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে৷ বিপর্যস্ত জাপানের জনজীবন৷ আবহাওয়া দপ্তরের তথ্যানুযায়ী, ৮৭০ মাইল এলাকা জুড়ে এগোতে থাকা ওই টাইফুনের জেরে তীব্র ঝোড়ো হাওয়া বইবে। এই ঝড়ের কেন্দ্রে ঘণ্টায় প্রতি ঘণ্টায় ১৬২ কিলোমিটার বেগে হাওয়া বইবে বলে পূর্বাভাস আবহাওয়া দপ্তরের৷

গতমাসেই জাপানের ‘শিবা’ প্রদেশ পড়েছিল টাইফুনের কবলে৷ সেই ধাক্কা এখনও সামলে উঠতে পারেননি সেখানকার বাসিন্দারা৷ তারই মধ্যে শনিবার সকাল থেকে টের পাওয়া যাচ্ছিল আরেক টাইফুন ‘হাগিবিস’-এর পদধ্বনি। অবশেষে গতকাল স্থানীয় সময় সন্ধে সাতটা নাগাদ জাপানের ভূখণ্ডে আছড়ে পড়ে ভয়ঙ্কর এই ঘূর্ণিঝড়। যার জেরে এখন জাপানের বিস্তীর্ণ অঞ্চল বন্যার কবলে৷ সঙ্গে রয়েছে ভূমিধস ও নদীতে প্রবল জলোচ্ছ্বাস৷ নিরাপদ স্থলে সরানো হয়েছে কয়েক হাজার মানুষকে। উদ্ধারে হেলিকপ্টার ব্যবহার করছে জাপানের সেনাবাহিনী৷ নাগানো শহরের এক জরুরি পরিষেবা বিভাগের আধিকারিক ইয়াসুহিরো ইয়ামাগুচি জানিয়েছেন, এক রাতে আমরা ৪২৭টি বাড়ির ১,৪১৭ জনকে সরিয়েছি। আরও কত বাড়ি বন্যা কবলিত তা এখনও স্পষ্ট নয়।

 

এই নাগানো শহরের বন্যার জেরে বেহাল দশা মানুষের৷ বিস্তীর্ণ এলাকা বিদ্যুত বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে৷ আকাশপথে তোলা ফুটেজে দেখা গিয়েছে, নাগানো শহরে কাদাজলে প্রায় অর্ধেক ডুবে রয়েছে এখানকার বুলেট ট্রেন। হাগিবিসের তাণ্ডবে বিপর্যস্ত যানচলাচলও। টোকিয়োর বহু ট্রেন ও বুলেট ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। স্তব্ধ বিমান পরিষেবাও

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here