ফের হতে পারে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক, ভয়ে পাক সীমান্ত থেকে উঠে গেল ১১ টি জঙ্গি ঘাঁটি

0
124
terrorists

মহানগর ওয়েবডেস্ক: পুলওয়ামার ঘটনার পর পাকিস্তানের বালাকোটে ভারতের এয়ারস্ট্রাইক মনে ভয় ঢুকিয়েছে জঙ্গিদের। আর সেই ভয়েই তড়িঘড়ি সীমাপারের ১১ টি দাগী জঙ্গি ঘাঁটি গায়েব হয়ে গেল রাতারাতি। অনুমান করা হচ্ছে, বালাকোটের ধাঁচে ফের একবার পাক অধিকৃত কাশ্মীরে এয়ারস্ট্রাইক চালানোর পরিকল্পনা শুরু করেছে ভারত। আর সেই ভয়েই তড়িঘড়ি তল্পিতল্পা গুটিয়ে এলাকা ছেড়েছে জঙ্গিরা। যে সমস্ত জঙ্গি ক্যাম্পগুলিকে উঠিয়ে নেওয়া হয়েছে তারমধ্যে রয়েছে জৈশ-ই-মহম্মদ, লস্কর-ই-তৈবার মতো একাধিক জঙ্গি প্রশিক্ষণ শিবির।

পাকিস্তান যে বহুকাল ধরে জঙ্গিদের আঁতুড়ঘর এই দাবি বিশ্বমঞ্চে বহুবারই প্রতিষ্ঠিত করেছে ভারত। আর অধিকৃত কাশ্মীরেই যে তাদের ভারতে অনুপ্রবেশের মূল জায়গা তা বার বার দেখে এসেছে ভারত। ওই এলাকাগুলিতে লঞ্চপ্যাড বসিয়ে পাক সেনার সহায়তায় সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে জঙ্গি ঢোকায় পাকিস্তান। তবে একের পর এক সার্জিক্যাল স্ট্রাইক ও এয়ার স্ট্রাইকের পর আপাতত ভিতি ঢুকেছে জঙ্গিদের মনে। ফের হামলা হতে পারে এহেন গোপন সংবাদ তাদের কাছে যাওয়ার পর এলাকা ছেড়েছে জঙ্গিরা। উঠে গিয়েছে ভারতের নজরে থাকা এমন ১১ টি ঘাঁটি। যে ঘাঁটি গুলি উঠিয়ে নেওয়া হয়েছে তাঁর মধ্যে রয়েছে ৫টি পিওকে-র মুজফ্ফরাবাদে, ৫টি কোটলিতে এবং একটি বারনালায়। ভারতের সুন্দরবনি এবং রাজৌরি সেক্টরের কাছে যে শিবিরগুলি ছিল সেগুলি বন্ধ করা হয়েছে। অধিকৃত কাশ্মীরে হিজবুলের একাধিক ক্যাম্পও বন্ধ।

তবে পাক সীমান্তে ফের হামলার পরিকল্পনা চলছিল কিনা সে বিষয়ে মুখ খোলেনি নয়া দিল্লি। পাশাপাশি সেনা জওয়ান বিপিন রাওয়াতও এই খবরের সত্যতা নিয়ে কিছু বলতে চাননি। তবে তাঁর কথায়, পাকিস্তান জঙ্গি ক্যাম্প বন্ধ করেছে কিনা সে সত্যতা খতিয়ে দেখার কোনও উপায় নেই। আর সেই কারণে সীমান্তে ভারতীয় সেনার প্রহরা আগে যেমন চলত এখনও তাই চলবে। কোনও খামতি থাকবে না সেখানে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here