ডেস্ক: নিউটাউনে দু’দিনের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের সম্মেলন থেকে খুশির খবর এল রাজ্যে। বাংলার হস্তশিল্পের জন্য ১১৩ কোটি টাকার বিদেশী বিনিয়োগের পাশাপাশি প্রায় ২লক্ষ কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হল এই সম্মেলন থেকে। চিন, জাপান, নেদারল্যান্ড সহ বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশ বাংলার হস্তশিল্পে নিজেদের বিনিয়োগের কথা ঘোষণা করেছে।

রাজ্যের হস্তশিল্পকে আরও উন্নততর করে তুলতে গত সোমবার থেকে নিউটাউনে শুরু হয়েছিল দুদিনের শিল্প সম্মেলন। গতকাল তা শেষ হয়। আর সেখান থেকে গ্রাম বাংলার প্রান্তিক শিল্পীদের সরকারি সুবিধা প্রদানের কথা তুলে ধরেন রাজ্যের অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের উন্নতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এই সরকার সাত বছরের মেয়াদকালে মোট ১ লাখ ৭৪ হাজার কোটি টাকা ঋণ দিয়েছে। ২০১৭-২০১৮ আর্থিক বছরে ঋণ দেওয়া হয়েছে ৪৪ হাজার কোটি টাকা। সামনের দু’বছরের জন্য ৮০ হাজার কোটি টাকা ব্যাঙ্ক ঋণ দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা রেখেছে সরকার। দুই হাজার একর জমির উপর ৩০টি শিল্প পার্ক হবে।’ বানতলায় একটি লেদার কমপ্লেক্স হবে বলেও জানান অর্থমন্ত্রী। এই লেদার কমপ্লেক্সের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘ইতিমধ্যেই সেখানে প্রায় দেড় লাখ মানুষ কাজ করছেন। আরও দু’লাখ বেকার যুবক-যুবতীর কর্মসংস্থান ঘটবে সেখানে। এবং লেদার কমপ্লেক্সের জন্য বরাদ্দ হবে ৫ হাজার কোটি টাকা।’

উল্লেখ্য, ক্ষমতায় আসার পর থেকে রাজ্যে শিল্প আনতে বেশ সচেষ্ট মমতা সরকার। প্রতিবছর রাজ্যে বাণিজ্য সম্মেলনের আয়োজনও করেছেন তিনি। কিন্তু সেভাবে এখনও কোনও বড় শিল্পের মুখ দেখেনি রাজ্য। রাজ্যের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পকে বাঁচিয়ে রাখতে প্রান্তিক শিল্পীদের জন্য ভাতা দেওয়ার ব্যবস্থাও করেছেন তিনি। শিল্পের টানে আগামী মাসেই ইউরোপ সফরে যাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরইমাঝে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পে এই বিশাল বিদেশী বিনিয়োগ যে খুসির খবর তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here