ডেস্ক: বিরাট বিপদে পড়তে চলেছেন মহারাষ্ট্রের রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে চাকরি হারানোর উপক্রম হয়েছে মহারাষ্ট্রের ১১,৭০০ সরকারি কর্মীদের। কিন্তু শীর্ষ আদালতের এই সিদ্ধান্ত নিয়ে মহা দ্বন্দ্বে ফড়ণবীশ সরকার। এই বিশাল পরিমাণ কর্মীদের কীভাবে ছাঁটাই করা হবে সেটাই এখন তাদের জন্য সবচেয়ে বড় মাথা ব্যাথার কারণ হয়ে উঠেছে।

সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে, ভুয়ো শংসাপত্রের সহায়তায় তপশীলি এবং উপজাতি কোটায় সরকারি চাকরি পেয়েছিলেন সুপ্রিম আদালতের নিশানায় নেওয়া এই ১১,৭০০ জন। এক তদন্তে এই তথ্য উঠে আসার পরই চক্ষু চড়কগাছ হয় রাজ্য সরকারের। বিষয়টি নিয়ে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হওয়ার পর প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ জানায়, অবিলম্বে বরখাস্ত করতে হবে ভুয়ো শংসাপত্র দিয়ে চাকরি পাওয়া প্রার্থীদের।

কিন্তু এই বিশাল সংখ্যক কর্মীদের ছাঁটাই করলে রাজ্যজুড়ে যে নতুন বিক্ষোভ জন্ম দেবে সেই আশঙ্কায় রয়েছে মধ্যপ্রদেশ সরকার। ১১,৭০০ জন কর্মীদের মধ্যে অনেকেই বিগত দু’দশক ধরে কাজ করছেন রাজ্য সরকারের অধীনে। অনেকেই আবার ডেপুটি সচিব পদে প্রোমোশন পেয়েছেন। ফলে এই পরিমাণ কর্মীদের ছাঁটাই করলে কি প্রভাব পড়বে এবং তার পরবর্তী কী অবস্থার সৃষ্টি হবে সেই নিয়েই আশঙ্কায় দিন গুনছে ফড়ণবীশ সরকার।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here