FotoJet-19

শ্যামলেশ ঘোষ: দেশে মাত্র একবছরে বায়ুদূষণ প্রাণ কেড়েছে ১২ লক্ষ মানুষের। দুর্ঘটনা আর ম্যালেরিয়ায় মৃত্যুর সংখ্যার তুলনায় বায়ুদূষণের ফলে মৃত্যুর সংখ্যা ছাপিয়ে গিয়েছে। এই হিসেব শুধুমাত্র ২০০৭-এর। ভয়াবহ এই তথ্য সামনে এনেছে মার্কিন সংস্থা হেলথ এফেক্টস ইনস্টিটিউট প্রকাশিত ‘স্টেট অব গ্লোবাল এয়ার ২০১৯’ শীর্ষক একটি প্রতিবেদন।

প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, কেবল ২০০৭-এই হার্ট অ্যাটাক, ফুসফুসের ক্যানসার, ডায়াবেটিস প্রভৃতি অসুখের প্রভাবে গোটা বিশ্বে অন্তত ৫০ লক্ষ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে ৩০ লক্ষের মৃত্যুর কারণ পার্টিকুলেট ম্যাটার ২.৫। এমনকী দূষিত বাতাসের বিষের প্রভাবে গোটা দক্ষিণ এশিয়ায় জন্ম নেওয়া শিশুদের আয়ু কমে গিয়েছে আড়াই বছর। অথচ গোটা বিশ্বের নিরিখে শিশুদের আয়ু কমেছে ২০ মাস।

আমেরিকান হেলথ এফেক্টস ইনস্টিটিউট অবশ্য দূষণের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ভারতের বিবিধ উদ্যোগের প্রশংসা করেছে। সংস্থার বক্তব্য, ভারত বায়ুদূষণ ঠেকাতে গুরুত্বপূর্ণ পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী উজ্জ্বলা যোজনা, ন্যাশনাল ক্লিন এয়ার প্রোগ্রাম এবং বিএস-৪ প্রকল্পের সঠিক প্রয়োগের মাধ্যমে ইতিবাচক ফল পেতে শুরু করেছে। সংস্থার দাবি, বিশ্ব জুড়ে পথ-দুর্ঘটনা, ম্যালেরিয়ায় মৃত্যুর চেয়ে বেশিমানুষ বায়ুদূষণের বলি হচ্ছেন। আর এই ইস্যুতে ভারত ও প্রতিবেশী চিনের অবস্থান একই সারিতে। ভারতে প্রতিবছর যত মানুষের অপমৃত্যু হচ্ছে, তার তৃতীয় সবচেয়ে বড় কারণই হচ্ছে পরিবেশের দূষণ।

বিশ্বের মধ্যে দক্ষিণে এশিয়াকে সবচেয়ে দূষিত বলে চিহ্নিত করা হয়েছে রিপোর্টে। বলা হয়েছে, ভারত, পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও নেপালে দূষণের পরিমাণ সবচেয়ে বেশি। গোটা দক্ষিণ এশিয়ায় ফি-বছর অন্তত ১৫ লক্ষ মানুষ বায়ুদূষণের শিকার হয়ে অকালে মারা যাচ্ছেন। এমনকী চিন আর ভারতে দূষণের ফলে মৃত্যুর সংখ্যা অনেকটা একই। যদিও চিন এই দূষণ কমানোর লড়াইয়ে বেশ সাফল্য পেয়েছে বলে দাবি মার্কিন সংস্থাটির।

রিপোর্ট আরও বলছে, ২০০৭-এ বিশ্বের জনসংখ্যার অর্ধেকটাই, অর্থাৎ ৩৬০ কোটি মানুষ নিজের বাড়িতেই দূষণের শিকার হয়েছেন। তবে উন্নয়নের গতি তরান্বিত হওয়ায় কাঠ-কয়লা প্রভৃতি কঠিন জ্বালানি ব্যবহার করে রান্না করার অভ্যাস ক্রমশ কমছে। এখনও ভারতে ৬০ শতাংশ মানুষ এবং বাংলাদেশে ৭৯ শতাংশ মানুষ কঠিন জ্বালানি ব্যবহার করে রান্না করেন। এর ফলেই বাড়ির ভেতরেই দূষণ বেড়ে চলেছে এবং তা বাইরের বাতাসকেও দূষিত করছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here