কোচবিহার: গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে নাজেহাল কোচবিহারের মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে অভিযান চালাতে গিয়ে দুষ্কৃতীদের হামলার মুখে পড়েছিল কোচবিহার পুলিশ। তবে লাভ কিছু হয়নি, উল্টে পুলিশের উপরে হামলা চালানোর অভিযোগে ১২ জঙ্কে গ্রেপ্তার করল পুলিশ একিসঙ্গে তাদের কাছ থেকে উধারক্রা হল বিপুল পরিমান আগ্নেয়াস্ত্র। বুধবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে সিতাই এর নিউবাজার এলাকায় অভিযুক্তদের ওই এলাকা থেকেই গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ধৃতরা সকলেই এলাকায় যুব তৃনমূল এর কর্মী বলে পরিচিত। ধৃতদের আজ দিনহাটার আদালতে তোলা হবে। তবে পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় যুব তৃনমূল এর কেউ জড়িত নয় বলে যুব তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে থেকেই দিনহাটায় তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দল রয়েছে। মূলত তৃনমূল ও যুব তৃনমূল এর মধ্যে এই কোন্দল। পঞ্চায়েত নির্বাচনে এই কোন্দল চরম আকার নেয়। দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে কোচবিহারে। নির্বাচন শেষ হয়ে গেলেও অশান্তি অব্যাহত থাকায় গত মঙ্গলবার কোচবিহারের চ্যাংরাবান্ধা থেকে পুলিশকে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশের ২৪ ঘন্টার মধ্যে সিতাইতে অভিযান চালাতে গেলে পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের যুব নেতৃত্বের বিরুদ্ধে। এই হামলার জেরে পরিমল সরকার নামে দিনহাটার এসডিপিওর দেহরক্ষী গুলিবিদ্ধ হন। এরপর রাতে বিশাল পুলিশ বাহিনী নিয়ে ফের অভিযানে নামে পুলিশ। উদ্ধার হয় প্রচুর আগ্নেয়াস্ত্র। এছাড়া ১২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এইপ্রসঙ্গে কোচবিহার জেলা পুলিশ সুপার ভোলানাথ পান্ডে বলেন, ১২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এছাড়া ৪ টি ওয়ান শাটার, ৫ টি গুলি, ৫ টি ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করেছে। আগামী দিনেও এধরনের অভিযান চালানো হবে বলে জানানো হয়েছে পুলিশ সুপারের তরফে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here