ডেস্ক: শবরীমালা মন্দিরে সব বয়সী মহিলাদের অবাধ প্রবেশাধিকারের বিরুদ্ধে কেরলে ১২ ঘন্টার বনধের ডাক দিল শবরীমালা প্রোটেকশন কমিটি। মন্দির ইস্যু নিয়ে তীব্র বিতর্কের পর সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে গতকাল শবরীমালা মন্দির খুলেছে। তবে প্রশাসনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে মন্দির চত্ত্বরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে তথাকথিত রক্ষণশীলরা। এমনকি তাঁদের সঙ্গে এই বিক্ষোভে সামিল হয় খোদ মহিলারাই। মঙ্গলবার নীলাক্কল বেসক্যাম্পে গাড়ি থামিয়ে তল্লাশি চালানো হয়। কমবয়সী মহিলাদের রীতিমতো হুমকি দিয়ে ফিরে যেতে বলা হয়। বাদ যান না মহিলা সাংবাদিকরাও। দুই মহিলা মন্দিরে প্রবেশের জন্য রওনাও দেয়। কিন্তু, বাধা পেয়ে মাঝপথ থেকেই ফিরতে বাধ্য হন তাঁরা। বেশ কয়েকটি বাসে ভাঙচুরও চালানো হয়। বাসে তল্লাশি চালিয়ে মহিলাদের ধাক্কা মেরে নামিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ ওঠে।

এদিন এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেন মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন। তিনি বলেন, মহিলাদের মন্দিরে ঢুকতে বাধা দিলে তাঁদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। অবশ্য এই ঘটনায় কয়েকজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। শবরীমালা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশাধিকার নিয়ে যাবতীয় দ্বন্দ্ব মিটিয়ে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। গত মাসেই এই মন্দির ইস্যু নিয়ে রায়ে দিয়ে জানান হয়েছে, কেরলের শবরীমালা মন্দিরে সব বয়সের মহিলারাই অবাধ প্রবেশ করতে পারবেন। এতদিন ১০-৫০ বছরের মহিলাদের প্রবেশাধিকার ছিল না। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সেই নিষেধাজ্ঞা উঠে যায়। এই রায়ের পরও বিতর্ক কমেনি কেরলের শরবীমালা মন্দির নিয়ে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here