international news

Highlights

  • বালক-বালিকা যা কাণ্ড ঘটাল তা অবাক হওয়ার থেকেও বেশি অবৈজ্ঞানিক
  • দুই ‘পুচকে’কে নিয়ে এখন বিতর্ক তুঙ্গে গোটা দেশে
  • এই ঘটনায় তাদের এলাকার লোকজন প্রচণ্ড ক্ষুদ্ধ

মহানগর ওয়েবডেস্ক: কারও সঙ্গে প্রেম করার বা কাউকে ভালবাসার কোনও বয়স থাকে না, এই ভাবনাই রাজত্ব করছে বছরের পর বছর ধরে। কিন্তু যৌনতারও কি কোনও বয়স থাকবে না? এই নিয়ে তো কেউ আজ পর্যন্ত ভাবেনি। আর যৌন সম্পর্ক নিয়ে ভাবতে গেলে তো যৌনতা নিয়ে শিশুদের সঙ্গে শুরু থেকে চর্চা রাখতে হবে, তাদের বোঝাতে হবে জীবনধারা সম্পর্কে। কিন্তু সেই সবকিছুই ছাপিয়ে গিয়ে দুই বালক-বালিকা যা কাণ্ড ঘটালো তা অবাক হওয়ার থেকেও বেশি অবৈজ্ঞানিক! কারণ ১০ বছরের বালকের সঙ্গে যৌন সম্পর্কে গর্ভবতী হল বছর ১৩-এর বালিকা। ঘটনা রাশিয়ার।

দারিয়া এবং ইভান। দারিয়ার বয়স মাত্র ১৩ এবং ইভান ১০। স্বভাবত এই বয়সের বাচ্চারা স্কুলে গিয়ে পড়াশুনা করার পাশাপাশি খেলাধুলোয় মেতে থাকে, কার্টুন দেখে, বাবা-মায়ের কথা শোনা। কিন্তু এই দুই জনের গল্পটা অবশ্যই অন্যরকম। দারিয়া আর ইভানের ১ বছরের প্রেম, শুধু তাই নয় দারিয়া এখন ৮ মাসের গর্ভবতী! তার দাবি, ইভানই হচ্ছে ওই বাচ্চার বাবা! রাশিয়ার জেলেসনগরস্ক শহরের বাসিন্দা এই দুই ‘পুচকে’কে নিয়ে এখন বিতর্ক তুঙ্গে গোটা দেশেই।

13-year-old girl pregnant with 10-year-old boy, doctor shocked - family upset

সম্প্রতি দেশের এক জনপ্রিয় টিভি শোয়ে এসেছিল দু’জন। সঙ্গে ছিল তাদের মা’রাও। সেখানেই দারিয়া দাবি করে, একবছর আগেই প্রথম দেখাতে ইভানের সঙ্গে প্রেম হয় তার। তারপর তারা যৌন সঙ্গমে লিপ্ত হয়। পরবর্তী সময় ডাক্তারি পরীক্ষায় জানা যায় সে গর্ভবতী! টিভি শোয়ে উপস্থিত এক ডাক্তার বলেন, ‘আমি ইভানকে পরীক্ষা করেছি। এই বয়সে তার যে স্পার্ম কাউন্ট তাতে তার বাবা হওয়া অসম্ভব।’ কিন্তু দারিয়ার স্পষ্ট দাবি, ইভানই তার বাচ্চার বাবা। অনুষ্ঠানে উপস্থিত এক মনোবিদ দারিয়ার কথার প্রেক্ষিতে বলেন, ‘মনোবল এবং দৃঢ়তা দেখে বোঝা যাচ্ছে ও সত্যি কথাই বলছে’।

দারিয়ার মার কথায়, তার মেয়ে অনেক আগে থেকেই তাদের এই সম্পর্কের কথা জানিয়েছিল। দারিয়া এই বাচ্চার জন্ম দিতে চায়, তারাও চান মেয়ের ইচ্ছা পূরণ হোক। ওদিকে, ইভানের পরিবারও দারিয়ার পরিবারের হ্যাঁ’তে হ্যাঁ মিলিয়েছে। তাদের মতে, ইভান গোটা বিষয়টি নিয়ে খুবই আত্মবিশ্বাসী, ও বলছে ও দায়িত্ব নিতে পারবে। পরিবারের মত, বয়স কম হওয়ার দরুণ সে হয়তো আসল ঘটনা বুঝতে পারছে না, কিন্তু যা ঘটনা ঘটেছে তাতে তাদের আপত্তি নেই। তবে দারিয়া এবং ইভানের এই ঘটনায় তাদের এলাকার লোকজন প্রচণ্ড ক্ষুদ্ধ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here