kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, নদিয়া: বৈধ কাগজপত্র অর্থাৎ পাসপোর্ট ছাড়াই কাঁটাতারের বেড়া টপকে এদেশে ঢুকেছিলেন কয়েক মাস আগে। পেটের দায়ে ওপার বাংলা থেকে এই দেশে এসে বেঙ্গালুরুতে গিয়েছিলেন কাজে। দেশে ফেরার পথে ধরা পড়ে গেলেন ১৪ জন বাংলাদেশি। তাদের কারও কাছে পাসপোর্ট ছিল না। এদেশে আসার পর বেঙ্গালুরুতে গিয়ে কাজকর্ম ভালই চলছিল। তারপর করোনা ভাইরাসের কারণে লকডাউন জারি হয়। ফলে তারা হয়ে পড়েন কর্মহীন। পকেটে টান পড়তে থাকায় এবার তারা বাধ্য হন দেশে ফেরার পথ ধরতে। দেশে ফেরার জন্য তারা বেঙ্গালুরে থেকে বাংলায় আসেন। নদিয়া সীমান্ত দিয়ে তারা বাংলাদেশে ফিরতে চেয়েছিলেন।

এদিকে, নদিয়ার রানাঘাটে চলছিল নাকা চেকিং। সেই সময় ওই ১৪ জনকে ইতস্তত ঘোরাঘুরি করতে দেখে পুলিশের সন্দেহ হয়। তাদের আটকে জিজ্ঞাসাবাদ করতেই পুলিশ জানতে পারে তারা বাংলাদেশি। তাদের কাছে ছিল না প্রয়োজনীয় কাগজপত্র। দেখাতে পারেননি পাসপোর্ট। অনুপ্রবেশকারী ওই ১৪ জনকে গ্রেফতার করে রানাঘাট আদালতে তোলে পুলিশ।

ওই বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীরা জানিয়েছেন, পেটের দায়ে তারা চোরাপথে এদেশে ঢুকে বেঙ্গালুরু গিয়েছিলেন কাজ করতে। সেখানে ভালই চলছিল কাজ। তারপর লকডাউনের জন্য বন্ধ হয়ে যায় সবকিছু। কাজ না থাকায় তারা দেশে ফেরার চেষ্টা করেন। আর সেই চেষ্টা করতে গিয়ে পুলিশের হাতে ধরা পড়েন ওই বাংলাদেশিরা। তারা চোরাপথে অনুপ্রবেশ করেছিলেন বলে স্বীকার করেছেন। ধৃত ওই ১৪ জনের মধ্যে আছেন ৬জন পুরুষ ও ৮জন মহিলা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here