উপত্যকার একাংশ থেকে তুলে নেওয়া হল কার্ফু ধীরে ছন্দে ফিরছে জম্মু

0
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: উপত্যকায় ৩৭০ ধারা রদের পর থকেই জারি করা হয় ১৪৪ ধারা। নিশ্চিন্দ্র নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হয় গোটা ভূখণ্ডকে। বন্ধ করে দেওয়া হয় কেবল, ইন্টারনেট , মোবাইল পরিষেবা। থমথম পরিবেশের মধ্যে দিয়েই সীমান্তে পালিত হয় ইদ। যদিও প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে নমাজের দিন অর্থাৎ শুক্রবার করে জম্মু-কাশ্মীরে রদ করে দেওয়া হয় ১৪৪ ধারা। অন্যদিকে সংসদে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ার পরই স্বাভাবিক হতে থাকে লাদাখের পরিস্থিতি। অপরদিকে কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে শোরগোল শুরু হয় ৷এরমধ্যে  কয়েকটি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম দাবি করতে থাকে উপত্যকার পরিস্থিতি অশান্ত হয়ে উঠছে। কিন্তু এই খবর ভুয়ো বলে খারিজ করে দেওয়া হয় কেন্দ্রের তরফে।

এবার উপত্যকার একাংশ  থেকে পুরোপুরি ভাবে উঠে  গেল কার্ফু। বস্তুতু ৩৭০ ধারা বিলোপের ৯ দিন পর জম্মু থেকে তুলে নেওয়া হল ১৪৪ ধারা ৷ কার্ফু উঠে গেল যাবতীয় বিধি নিষেধও উঠে যায়। বুধবার কার্ফু রদের পরে র জম্মুতে রাস্তায় নেমে আসে সাধারণ  মানুষ৷ ধীরে ধীরে দেকানপাট খুলতে থাকে৷ ফের জমজমাট হয়ে ওঠে জম্মু৷

এদিকে কাশ্মীর থেকে এখনই তুলে নেওয়া হচ্ছেনা ১৪৪ ধারা। বিধি নিষেধ জারি থাকছে কাশ্মীরে। তবে তা কতদিনের জন্য থাকবে তা জানা যায়নি এখনও পর্যন্ত। জম্মু-কাশ্মীরের এক পুলিশ আধিকারিকের কথায়, অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা নেওয়া হবে কাশ্মীরে। তবে এ’বিষয়ে নিয়ে এখনই কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে না।উল্লেখ্য গত ৪ আগষ্ট থেকে কড়া নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হয় উপত্যকাকে। তাঁর আগে থেকেই দফায় দফায় সেনা পাঠান হয় উপত্যকায়। সমস্ত রকম অশান্তি এড়াতে প্রায় ৩৫ হাজার সেনা নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হয় গোটা উপত্যকাকে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here