national news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: লকডাউনের পর থেকে অনলাইনেই ক্লাস করাচ্ছে বিভিন্ন রাজ্যের সরকারি ও বেসরকারি স্কুলগুলি। একই ব্যবস্থা চালু রয়েছে দিল্লিতেও। তবে লকডাউনের পর থেকে সরকারি স্কুলগুলির ১৫ শতাংশ পড়ুয়াই বেপাত্তা। কোনওভাবেই মিলছে না তাদের খোঁজ। এমনটাই জানালেন দিল্লির শিক্ষামন্ত্রী মণীশ সিসোদিয়া।

তিনি জানিয়েছেন, স্কুল বন্ধ থাকলেও পড়াশোনায় কোনওভাবে ব্যাঘাত ঘটছে না। অনলাইন ও ফোনের মাধ্যমে জোরদারভাবে চলছে ক্লাস। তবে স্কুলের ১৫ শতাংশ পড়ুয়ার কোনওভাবে খোঁজ মিলছে না। তারা অনলাইন ক্লাসগুলিতে উপিস্থিত থাকছে না। এমনকি স্কুলে তাদের যে ফোন নম্বরগুলি দেওয়া ছিল সেগুলিও কাজ করছে না।

শিক্ষামন্ত্রী আরও জানিয়েছেন, তিনি ব্যক্তিগত উদ্যোগ নিয়ে খোঁজ নিয়েছেন ওই পড়ুয়াদের। তাদের মধ্যে কিছু সোনার খোঁজ মিললেও অনেকেই এখনো খুঁজে পাওয়া যায়নি। এমনকি স্কুলে তাদের যে ঠিকানা দেওয়া রয়েছে সেই ঠিকানায় পৌঁছে দেখা গিয়েছে তারা এখন সেখানে থাকে না।

শিক্ষামন্ত্রীর কথায়, এমনও অনেক পড়ুয়া রয়েছে যারা এই লকডাউনের পড়ে বিহার বা উত্তরাখণ্ডে চলে গিয়েছে। তবে তারাও আমাদের যোগাযোগে রয়েছে। সে সব পড়ুয়ারাও নিয়মিত অনলাইনে ক্লাস করছে।

যেসব পড়ুয়াদের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না তার সঠিক সংখ্যা জিজ্ঞাসা করা হলে শিক্ষামন্ত্রী জানান প্রত্যেকটি ক্লাস থেকে অন্তত চার থেকে পাঁচজন করে পড়ুয়াদের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। পড়ুয়াদের অনলাইন ক্লাস করার জন্য দিল্লি সরকার প্রতিমাসে ২০০ টাকার ইন্টারনেট প্যাকের সাবসিডিও দিয়েছে ১২ ক্লাসের পড়ুয়াদের।

এছাড়াও একটি গাইডলাইন জারি করা হয়েছে, যার দ্বারা একটি তালিকা তৈরি করা হবে সেইসব পড়ুয়াদের যারা এই লকডাউনের পর অন্য রাজ্যে নিজেদের বাড়ি ফিরে গিয়েছে। তবে তারা পরে রাজধানীতে ফিরে এলে ফের সেইসব স্কুলে ভর্তি হতে পারবে, স্কুলগুলিকে এমনই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে শিক্ষামন্ত্রকের তরফ থেকে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here