মহানগর ওয়েবডেস্ক: দেশজুড়ে চলছে চতুর্থ দফার লকডাউন। নিয়মকানুন বেশ অনেকটাই শিথিল। তা সত্ত্বেও একটি গরুর শেষযাত্রায় সামিল হলেন প্রায় ১৫০ জন। শুক্রবার ঘটনাটি ঘটে আলীগড়ে। এই প্রসঙ্গে সিভিল লাইনের সার্কেল অফিসার অনিল সামনিয়া জানান, লকডাউন না মানায় ইতিমধ্যেই একটি এফআইআর দায়ের করা হয়েছে।

যদিও লকডাউন উপেক্ষা করে গরুর শেষযাত্রায় সামিল হওয়ার ঘটনা নতুন নয়। গত মাসেই তামিলনাড়ুতে একটি ষাঁড়ের মৃত্যুর পর সেটির শেষযাত্রায় ২০০ মানুষ জড়ো হন। তামিলনাড়ুর সংস্কৃতিতে ষাঁড়ের দৌড় বেশ প্রসিদ্ধ এবং ঐ ষাঁড়টি বেশ বিখ্যাত ছিল।

এই প্রসঙ্গে স্থানীয় এক আধিকারিক জানান, ‘প্রাথমিক ভাবে ৩০-৪০ জন জড়ো হয়েছিলেন। কিন্তু তারপর সেই সংখ্যাটা বেড়ে ২০০ হয়ে যায়। গ্রামবাসীরা ওই ষাঁড়টিকে খুবই ভালোবাসতেন ও ভক্তি করতেন।’ ওই ষাঁড়টির শেষযাত্রায় মানুষরা ফুলের মালা, তোয়ালে ও টাকা নিয়ে এসেছিলেন। বহু মানুষের চোখে ছিল জল।

উল্লেখ্য, ১৮ মে থেকে সারা দেশে চতুর্থ দফার লকডাউন শুরু হয়েছে। কয়েকদিন আগেই জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী লকডাউন বাড়ানোর ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। সেই প্রেক্ষিতেই ৩১ মে পর্যন্ত বেড়ে যায় লকডাউনের মেয়াদ। লকডাউন ৪.০-র নির্দেশিকায় একাধিক ছাড়ের পাশাপাশি নাইট কার্ফুর কথা বলা হয়েছে। সাধারণ মানুষ যাতে রাস্তায় না বেরোন তার জন্য সন্ধে ৭টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত কার্ফু জারি করার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। এর অর্থ এই সময় কনটেইনমেন্ট জোন, গ্রীন, অরেঞ্জ বা রেড জোন, কোন জায়গাতেই এই সময় কেউ বের হতে পারবেন না। সব জায়গাতেই এই কার্ফু প্রযোজ্য হবে। নির্দেশিকায় আরো বলা হয়েছে, এই নিয়ম লাগু করতে স্থানীয় প্রশাসন এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here