ডেস্ক: দুর্গাপুজার পর সামনেই কালিপূজা রাজ্যে উৎসব মরসুম একরকম শেষ পর্যায়। এদিকে লোকসভা যত এগিয়ে আসছে উত্তেজনার পারদ চড়ছে সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলির মধ্যেই। ভোট পূর্বে নিজেদের সমস্ত রণকৌশল প্রায় ঠিক করে ফেলেছে তৃণমূলের সবচেয়ে বড় প্রতিপক্ষ দল বিজেপি। আগামী ৫ ডিসেম্বর ভোট প্রচারের লক্ষ্যে রাজ্য জুড়ে নামতে চলেছে বিজেপির রথ। প্রধান প্রতিপক্ষকে টক্কর দিতে এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ৪২ শে ৪২ সাফল্য মণ্ডিত করতে মাঠে নামতে চলেছে তৃণমূল। আগামী ১৬ নভেম্বর দলকে একত্রিত করে কোর কমিটির বৈঠকে বসতে চলেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেখান থেকেই তৈরি হতে চলেছে ঘাস ফুলের রণকৌশল।

এমনিতেই প্রতিবছর বিজয়া দশমীর পর বিজয়া সম্মেলন অনুষ্ঠান করে তৃণমূল। আর সেখান থেকেই কোর কমিটির বৈঠকটাও সেরে ফেলতে চলেছে তৃণমূল। নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়ামের এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে চলেছেন সাংসদ, বিধায়ক, ত্রিস্তর পঞ্চায়েতের সমস্ত জনপ্রতিনিধিরা। সবমিলিয়ে আগামী ১৬ নভেম্বর এক মহাযজ্ঞের আয়োজন হতে চলেছে এই কোর কমিটির বৈঠকে। তবে শুধু বিজেপির বিরুদ্ধে লড়ার রণ কৌশল নয়, এই বৈঠকে ২১ জুলাইয়ের মঞ্চে ২০১৯ ব্রিগেড প্যারেডের কথা ঘোষণা করেছিলেন মমতা তারও চূড়ান্ত পরিকল্পনা সংগঠিত হতে চলেছে এই বৈঠক থেকে।

উল্লেখ্য, ২০১৯ লোকসভা নির্বাচন যে কোনও ভাবেই হেলাফেলার নয়, তা অনেক আগেই বুঝিয়ে দিয়েছে দেশের বিরোধী রাজনৈতিক সংগঠন। এদিকে রাজ্যে হামাগুড়ি থেকে উঠে দাঁড়ানোর এ এক সুযোগ বিজেপির কাছে। তাই কোনও পক্ষ এক ইঞ্চি জমি ছাড়তে রাজি নয় কাউকেই। বিজেপি যেখানে রথ যাত্রার পথে হাটছে, সেখানে দেশের সমস্ত বিরোধী দলের নেতৃত্বকে এক ছাতার তলায় এনে ব্রিগেডে এক বিশাল প্রচারের লক্ষ্যে নেমেছে তৃণমূল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here