health news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: আতঙ্ক বাড়ছে। একইসঙ্গে প্রমাদ গুনছে গোটা বিশ্ব। করোনাকে সীমান্তের বাইরে রাখতে তোড়জোড় শুরু করেছে বাকি দেশগুলি। কিন্তু চিনে সময় যত এগোচ্ছে পরিস্থিতি হয়ে উঠছে আরও ভয়াবহ। শনিবার করোনা ভাইরাসের জেরে নতুন করে মৃত্যু হল ১৪৩ জনের। সব মিলিয়ে রবিবার মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ১ হাজার ৬৬৫। নতুন করে এই মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৯ জন। সব মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে ৬৮ হাজার। পরিস্থিতি যে দিন দিন আরও ভয়াবহ হয়ে উঠছে তা স্বীকার করে নিচ্ছে গোটা বিশ্ব।

ভয়াবহ এই ভাইরাস থেকে মুক্তির উপায় এখনও পর্যন্ত বের করে উঠতে পারেনি চিন প্রশাসন। জনবহুল এই দেশ থেকে কার্যত বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে করোনার আঁতুড় ঘর উহানকে। তবে শেষ এখানেই নয়, উহান ছাড়াও চিনের বাকি প্রদেশগুলিতেও ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস। চিন ছাড়িয়ে করোনার হানাদারি দেখা গিয়েছে ফিলিপিন্স, জাপান সহ বিশ্বের ২৪ টি দেশে। চিন ছাড়িয়ে বিদেশে এই ভাইরাসের জেরে এখনও পর্যন্ত ৩ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে।

এর ভয়াবহতা আঁচ করে বহু আগেই গোটা বিশ্বে সতর্কতা জারি করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ‘হু’। করোনার থাবা থেকে বাঁচতে চিনের বিমানে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে একাধিক রাষ্ট্র। পর্যটকদের উপরও জারি করা হয়েছে নিষেধাজ্ঞা। দিনে দিনে পরিস্থিতি যে আরও খারাপ হতে চলেছে তা স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। সম্প্রতি এক বেসরকারি সংস্থার রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে মৃতের আসল সংখ্যা ধামাচাপা দিয়েছে চিন প্রশাসন। যখন সরকারের তরফে জানানো হয়েছিল ৩০০ জনের মৃত্যু হয়েছে তখন আসলে মৃতের সংখ্যা ছিল ২৫ হাজার। যদিও চিন সরকার সে দাবিকে ভুয়ো বলে জানিয়ে দিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here