vivek_Force

ডেস্ক: প্রথম দফা নির্বাচনের পর আপাত শান্তিপূর্ণ ভোট হলেও পুরোমাত্রায় সন্তুষ্ট হতে পারেনি নির্বাচন কমিশন। সেই প্রেক্ষিতে দ্বিতীয় দফায় কেন্দ্রীয় বাহিনী বাড়ানোরই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল তারা। আগামিকাল দ্বিতীয় দফার ভোট। রাজ্যের তিন কেন্দ্রে অর্থাৎ দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি ও রায়গঞ্জে নিরাপত্তা নিয়ে যথেষ্ট পদক্ষেপ ইতিমধ্যেই নিয়ে ফেলেছে কমিশন। রাজ্যে আসছে ১৯৫ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। পাশাপাশি রায়গঞ্জে প্রায় সব বুথেই থাকছে কেন্দ্রীয় বাহিনী, সিসিটিভি, ক্যুইক রেসপন্স টিম। এমনটাই জানিয়েছেন বিবেক দুবে।

যে ১৯৫ কোম্পানি আধা সেনা রাজ্যে আসছে তার মধ্যে

শুধু রায়গঞ্জেই থাকছে ৬৪ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। দার্জিলিং ও জলপাইগুড়িতে থাকছে ৭৭ কোম্পানি এবং ৪৪ কোম্পানি সেনা। পাশাপাশি এও জানানো হয়েছে যে পাহাড়ে আরও ৭ কোম্পানি বাহিনী রিজার্ভে রাখা থাকবে। অন্যদিকে, ৬৪ কোম্পানি আধা সেনা থাকা রায়গঞ্জে প্রায় ৮০% বুথেই থাকবে বাহিনী; সব বুথেই সিসিটিভি।

প্রতি বুথে থাকবে ৪ থেকে ৮ জন আধা সেনা। ক্যুইক রেসপন্স টিমে থাকবেন ৮ জন আধা সেনা।

এর পাশাপাশি বিবেক দুবে আরও জানিয়েছেন, বুথে মোতায়েন করা বাহিনী ছাড়া যারা থাকবে তাদের প্রতি জায়গায় টহলদারির কাজে ব্যবহার করা হবে। বিহার থেকে দুষ্কৃতী অনুপ্রবেশ রুখতে একইসঙ্গে সীমান্ত এলাকার ২১টি জায়গায় নাকা তল্লাশি চালানো হয়েছে। নির্বাচন কমিশনের এইরূপ পদক্ষেপে এটা পরিস্কার যে প্রথম দফার নির্বাচনে যেটুকু অশান্তি বা বিভ্রাট ঘটেছে দ্বিতীয় দফা থেকে তার পুরনাবৃত্তি চায় না কমিশন। তাই অধিকাংশ বুথ এবং এলাকায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর ঘেরাটোপে আনতে বদ্ধপরিকর তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here