নিজস্ব প্রতিবেদক, মালদা: বুধবার দুটি পৃথক পৃথক ঘটনার জেরে জোর শোরগোল পড়ল মালদা জেলার জনজীবনে। একটি ঘটনায় ভাইয়ের হাতে গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন দাদা, অন্যটিতে স্বামীর হাতে অগ্নিদগ্ধ হয়ে প্রাণ হারাতে হল এক গৃহবধূকে।

প্রথম ঘটনাটি ঘটেছে জেলার পুকুরিয়া থানার খেরীপাড়া এলাকায়। প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে,
জমি বিবাদকে কেন্দ্র করে এই ঘটনা ঘটেছে। গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত আমজাদ আলীর কিছু চাষযোগ্য জমি রয়েছে। সেই জমিটিকে হঠাৎ করে দখল করার চেষ্টা করে অপর ভাই ফরিজুদ্দিন আলী। বুধবার সকালে ওই জমিতে ফরিজুদ্দিন ঢুকে পাটের বীজ ছড়াতে শুরু করে। সেই সময় আমজাদ তাকে বাধা দিলে ফরিজুদ্দিন তাকে বেধড়ক মারধর শুরু করে। তা দেখে পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা ফরিজুদ্দিনকে বাধা দিতে গেলে তাদেরও মারধর শুরু করে ফরিজুদ্দিন। অভিযোগ, ঝামেলা চলার মাঝেই হঠাৎ আমজাদকে লক্ষ করে গুলি ছুঁড়তে শুরু করে ফরিজুদ্দিন। সেই গুলি লাগে আমজাদের মাথায়। ঘটনায় গুরুত্বর আহত আমজাদকে দ্রুত মালদা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। ঘটনায় ফরিজুদ্দিন সহ পাঁচজনের নামে পুখুরিয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনার তদন্তও শুরু করেছে। যদিও ঘটনার পর থেকেই গা ঢাকা দিয়েছে ফরিজুদ্দিন।

দ্বিতীয় ঘটনাটি ঘটেছে জেলার মোথাবাড়ি থানার গঙ্গাপ্রসাদ গ্রামে। সেখানে স্ত্রীর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে মেরেছে তার স্বামী। প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে, মারে। পাঁচ বছর আগে মোথাবাড়ি থানার পরদা পাড়ার বাসিন্দা সাকিলা বিবির সাথে গঙ্গাপ্রসাদের বাসিন্দার দুলাল শেখের বিয়ে হয়। পেশায় দিনমজুর দুলালের জুয়া খেলার নেশা ছিল। তা নিয়ে মাঝে মধ্যেই বিবাদ হত।গতকাল তা চরমে ওঠে। জুয়াতে হেরে ঘরে এসে দুলাল টাকা চায় সাকিলার কাছ থেকে। কিন্তু তা দিতে অস্বীকার করে সাকিলা। তা নিয়েই শুরু হয় বচসা। অভিযোগ, বচসা চলাকালীন সময়েই সাকিলার গায়ে কেরোসিন ঢেলে তার গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয় দুলাল। ঘটনাস্থলেই অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যায় সাকিলা। ঘটনার পর থেকেই এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে দুলাল। ঘটনাটির তদন্ত শুরু করেছে মোথাবাড়ি থানার পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here