kolkata bengali news

ডেস্ক: বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই জল্পনা তুঙ্গে উঠেছিল যে ফের একবার পাহাড়ে পা দিতে পারেন মোর্চা নেতা বিমল গুরং। খবর ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে তৎপর হয়েছিল পুলিশ। বাগডোগরা বিমানবন্দর প্রায় ঘিরে ফেলা হয়। কিন্তু বিমল গুরুং আসেননি। তবে এদিন এসে পৌছায় গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার সেন্টার কমিটির দুই সদস্য রোহন রাই ও যোগেশ প্রধান। বিমানবন্দরে আসতেই তাঁদের গ্রেফতার করে পুলিশ। এরা দুজনেই গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার বিনয়পন্থী সেন্ট্রাল কমিটির নেতা।

বৃহস্পতিবার দিল্লি থেকে পাহাড়ে ফেরার কথা ছিল বিমল গুরুং ও রোশন গিরি সহ আরও আটজনের। কিন্তু তারা কেউই আসেননি। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা দাবি করেছিল যে, ফের রাজ্যে গুরুং প্রবেশ করলে পুনরায় অশান্তি ছড়াতে পারে বঙ্গে। কারণ এর আগে অশান্ত পাহাড়ের সাক্ষী থেকেছিল পাহাড়বাসী থেকে রাজ্যবাসী সকলেই। কিন্তু গ্রেফতারির ভয়েই রাজ্যে আসলেন না বিমল এমন খবর শোনা যাচ্ছে।

কিছুদিন আগেই ভোট প্রক্রিয়ায় সামিল হতে চেয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা করেছিল গুরুংপন্থীরা। তবে শীর্ষ আদালত সেই মামলা খারিজ করে কলকাতা হাইকোর্টে ফিরিয়ে দেয়। তবে নির্দেশ দেওয়া হয়, মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বিমল গুরুং বা রোশন গিরির বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ নেওয়া যাবে না। কার্যত শীর্ষ আদালতের এই রায়কেই ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে ফের রাজ্যে আসতে চলেছেন বিমল গুরুং এমনই খবর ছিল। কিন্তু পরবর্তী ক্ষেত্রে পুলিশ জানায়, বিমানবন্দরে নামলেই গ্রেফতার করা হবে তাঁকে, কারণ তাঁদের গ্রেফতারিতে কোনও আইনি সমস্যা নেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here