kolkata news

নিজস্ব প্রতিনিধি : বাংলাদেশে লঞ্চডুবিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২৬৷ রবিবার বিকেলে শীতালক্ষ্যা নদীতে ডুবে যায় যাত্রিবাহী ওই লঞ্চটি৷ পণ্যবাহী একটি জাহাজের সঙ্গে যাত্রিবাহী লঞ্চটির মুখোমুখী সংঘর্ষে উল্টে যায় সেটি৷ এখনও নিখোঁজ কয়েকজন যাত্রীর খোঁজে জারি রয়েছে তল্লাশি৷

শ’ আড়াই যাত্রী নিয়ে নারায়ণগঞ্জ থেকে একটি লঞ্চ রওনা দেয় মুন্সিগঞ্জের উদ্দেশ্যে৷ রবিবার সন্ধে ছ’টা নাগাদ লঞ্চটি যাত্রা শুরু করে৷ মদনগঞ্জ এলাকায় শীতালক্ষ্যা নদীতে লঞ্চটির সঙ্গে সংঘর্ষ হয় উল্টো দিক থেকে আসা একটি পণ্যবাহী জাহাজের৷ সঙ্গে সঙ্গে উল্টে যায় লঞ্চটি৷ যাত্রীদের আর্ত চিৎকারে ভারী হয়ে ওঠে শীতালক্ষ্যার আকাশ৷ যাত্রীদের অনেকেই সাঁতরে পাড়ে ওঠেন৷ নিখোঁজও হয়ে যান বেশ কয়েকজন যাত্রী৷ বিশেষত মহিলা ও শিশুরা৷ নিখোঁজ যাত্রীদের খোঁজে রাতেই নদীতে শুরু হয় তল্লাশি৷ তল্লাশিতে নামে উপকূলরক্ষী বাহিনী, দমকল ও বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের লোকজন৷ রাতভর তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার হয় মুন্সিগঞ্জের মালপাড়ার সুনীতা সাহা, উত্তর চরমসুরার সখিনা বেগম, প্রতিমা শর্মা ও নয়াগাঁও পূর্ব পাড়ার সাউদা আখতার লতার দেহ৷ আরও এক মহিলার দেহ উদ্ধার হয়েছে রাতেই৷ তাঁর পরিচয় জানা যায়নি৷

সোমবার সকালেও শীতালক্ষ্যায় ফের এক প্রস্ত তল্লাশি চালানো হয়৷ এবার উদ্ধার হয় আরও ২১ জনের দেহ৷ তাঁদের পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে বলে সূত্রের খবর৷ ইতিমধ্যেই যাঁদের পরিচয় মিলেছে, তাঁদের দেহ পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে৷ মৃতদেহ সৎকারের জন্য মৃতদের পরিবারের হাতে প্রশাসনের তরফে তুলে দেওয়া হয়েছে ২০ হাজার করে টাকা৷

লঞ্চডুবির কারণ অনুসন্ধানে গঠিত হয়েছে সাত সদস্যের তদন্ত কমিটি৷ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট খাদিজা তাহেরিকে আহ্বায়ক করে গড়া হয়েছে ওই কমিটি৷ পাঁচদিনের মধ্যে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে ওই কমিটিকে৷   

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here