news bengali national

মহানগর ওয়েবডেস্ক: করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যারা ইতিমধ্যেই সেরে উঠেছে তাদের শরীর থেকে সংগ্রহ করা হবে প্লাজমা। এমনই বিশেষ কর্মসূচি গ্রহণ করেছে অসম সরকার। সেই কর্মসূচি পালনেই এবার এগিয়ে এলেন অসমের ৩০০ চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী। মানুষের সেবা করতে গিয়ে এরাও আক্রান্ত হয়েছিলেন করোনায়। তবে এখন সকলেই সুস্থ।

এবার ফের মারণ এই ভাইরাস থেকে মানুষের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে এলেন এই করোনাযোদ্ধারাই। সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালের প্রায় ৩০০ চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী গুয়াহাটিতে আয়োজিত এই বিশেষ কর্মসূচিতে যোগ দিয়েছেন।

এই ৩০০ জনের মধ্যে রয়েছেন চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী। রয়েছেন ওয়ার্ড বয়। এমনকি অ্যাম্বুল্যান্স চালকও। এই প্লাজমা দাতারা অসমের বিভিন্ন অঞ্চলের বাসিন্দা। অসমের চিকিৎসক মানস কাকোটি জানিয়েছেন, আমাদের প্লাজমা দেওয়াটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ, কারণ এর ফলে বহু মানুষের জীবন বেঁচে যেতে পারে।

হিসেব অনুযায়ী, প্রায় ১২০০ চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী কাজ করতে গিয়েই করোনায় আক্রান্ত হন। গুয়াহাটি মেডিক্যাল কলেজের চিকিৎসক ফাহিমা নাজিম জানিয়েছেন, সুস্থ হওয়ার পর আমি ফের কাজে যোগ দিই। আমার এটাই মনে হয় যে প্লাজমা দান গুরুতর রোগীদের সুস্থ করার মুল লক্ষ্য হওয়া উচিত।

প্লাজমা দানের এই কর্মসূচিতে নাম লিখিয়েছিলেন আরও অনেকে। তবে তাদের শারীরিক পরীক্ষা হওয়ার পর ৩০০ জনকেই বেছে নেওয়া হয়। অ্যাম্বুল্যান্স চালক জানিয়েছেন, করোনা রোগীদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হত তার গাড়িতে। এরপর তিনি নিজেও করোনায় আক্রান্ত হন। তবে যখন তিনি জানতে পারেন প্লাজমা থেরাপি করোনা আক্রান্তদের বাঁচিয়ে তোলে তখনই প্লাজমা থেরাপির বিশেষ এই কর্মসূচিতে নাম লেখান তিনি। অসমের প্রতিটি জেলায় এই বিশেষ প্লাজমা থেরাপির কর্মসূচির আয়োজন করা হচ্ছে। প্লাজমা দিতে যারা ইচ্ছুক তারা এগিয়ে আসুক এমনটাই চায় রাজ্যের স্বাস্থ্যদফতর।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here