kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, বর্ধমান: পারিবারিক অশান্তির জেরে বাবার হাতে নৃশংস ভাবে খুন হলেন ৩৪ বছরের ছেলে। নিহতের নাম তারক রায় (৩৪)। বাড়ি বর্ধমান থানার রায়ান গ্রামের নারানদিঘি মোডলপুকুর এলাকায়। এই ঘটনার পর পলাতক অভিযুক্ত বাবা রবি রায়। প্রতিবেশী এবং মৃতের আত্মীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, আগে রবি রায় বর্ধমান শহরের লক্ষ্মীপুর মাঠ এলাকায় ভাড়া বাড়িতে থাকত। সম্প্রতি তারা নারানদিঘি এলাকায় বাড়ি করে চলে যায়। সেখানেই আলাদা বাড়িতে থাকেন রবি রায়ের স্ত্রী, বড় ছেলে। পাশের অন্য বাড়িতে রবি থাকত অবিবাহিত ছোট ছেলে তারক রায়ের সঙ্গে। দুই মেয়ে বিবাহসূত্রে অন্যত্র থাকেন।

নিহত তারক রায়ের বড় দাদা ধনঞ্জয় রায় জানিয়েছেন, প্রায় দিনই তাঁর ভাইয়ের সঙ্গে বাবার ঝামেলা হতো। প্রায়শই পাড়া-প্রতিবেশীরা গিয়ে মিটিয়ে দিতেন। মঙ্গলবার রাতেও দু’জনের মধ্যে ঝামেলা হয় এবং প্রতিবেশীরা গিয়ে মিটিয়ে দেন। এরপর বুধবার দুপুর প্রায় সাড়ে বারোটা নাগাদ তখনও বাবা বা ভাইয়ের কোনও সাড়া না পেয়ে তাঁরা গিয়ে দেখেন ভাইয়ের ক্ষতবিক্ষত রক্তাক্ত মৃতদেহ পড়ে রয়েছে বিছানায়। মৃতদেহের পাশেই পড়েছিল একটি লোহার রড। প্রাথমিক ভাবে অনুমান লোহার রড দিয়েই পিটিয়ে খুন করা হয়েছে তারক রায়কে।

এদিকে, এই ঘটনার পরই পালিয়ে যায় বাবা রবি রায়। ধনঞ্জয়বাবু জানিয়েছেন, তাঁর বাবা রেলে হকারি করত। লকডাউনের জেরে গত কয়েকমাস হকারি করা বন্ধ থাকায় যখন যা পেত তাই কাজ করত। অন্যদিকে, তারক রায় একটি বেসরকারি সংস্থায় নিরাপত্তারক্ষীর কাজ করতেন। এদিকে, মর্মান্তিক এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে গোটা এলাকায়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বর্ধমান থানার পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here