myanmar

মহানগর ডেস্ক: মায়ানমারে পুলিশের গুলিতে আন্দোলনকারীদের মৃত্যুর মিছিল ক্রমেই বাড়ছে। বুধবার সেনা অভ্যাত্থানের বিরোধিতা করে মায়ানমারের সাধারণ মানুষের আন্দোলন সব থেকে রক্তাক্ত ছিল। বুধবার দেশের বিভিন্ন জায়গায় আন্দোলনকারীদের ওপর পুলিশের গুলিতে ৩৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এর আগে মায়ানমারের একটি মানবাধিকার সংগঠন জানায়, দেশের বিভিন্ন শহরে পুলিশ সতর্কবার্তা ছাড়াই গুলি চালিয়েছে। যার জেরে ১৮ জন আন্দোলনকারীর মৃত্যু হয়েছে। যার জেরে সেনা অভ্যুত্থান বিরোধী আন্দোলনে ৫০ জন বিক্ষোভকারী নিহত হলেন। যত সময় যাচ্ছে, মায়ানমারে একের পর শহর থেকে মৃত্যুর খবর আসতে শুরু করেছে। একটি আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে, ৫০ জন নিহত আন্দোলনকারীর মধ্যে চার জন শিশু রয়েছে।

দেশের বাণিজ্য শহর ইয়াঙ্গনে বুধবার পুলিশের গুলিতে আটজন আন্দোলনকারীর মৃত্যু হয়েছে। ১৯ জন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার পুলিশের গুলিতে এই শহরে আরও সাতজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। মায়ানমারের মেইয়াখ্যা শহরে চার জন পুলিশের গুলিতে মারা গিয়েছেন। কমপক্ষে ৩০ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর। ২৫ বছরের এক আন্দোলনকারী বলেন, আমাদের দিকে লক্ষ্য করে পুলিশ গুলি ছোড়ে। এক কিশোরের গুলি লাগে। সঙ্গে সঙ্গে সে মারা যায়।

১ ফেব্রুয়ারি মায়ানমারে সেনা অভ্যুত্থান হয়। রাজনৈতিক নেতাদের বন্দি করে। জননেত্রী সু চিকেও বন্দি করেন। বন্দি হওয়ার পর থেকে সু চি সহ অন্যান্য রাজনৈতিক নেতা-নেত্রীদের কোথায় রাখা হয়েছে, জানা যায়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here