মহানগর ওয়েবডেস্ক: নৃশংস, ভয়াবহ, বীভৎসতাকে তুলে ধরতে যে ধরণের বিশেষণ রয়েছে সবই যেন কম পড়ে যায় এই ঘটনার ক্ষেত্রে। বয়েস মাত্র ৪ মাস। এখনও হামাগুড়িটুকু দিতে শেখেনি ছোট্ট শিশুকন্যা। মুখের ভাষা কান্না তো কখনও নিষ্পাপ মিষ্টি হাসি। এমন দুধের শিশুকেই ধর্ষণ করে নৃশংসভাবে হত্যা করল তারই তুতো দাদা। রবিবার রাতে ভয়াবহ এই ঘটনারই সাক্ষী থাকল উত্তরপ্রদেশের লখনউয়ের মাদিয়াঁও এলাকা।

জানা গিয়েছে, রবিবার রাতে এক বিয়েতে যোগ দিতে দাউদনগরে এসেছিল ওই শিশুটির পরিবার। সেখানেই রবিবার রাত ৭ টা নাগাদ শিশুটির সঙ্গে খেলবে বলে তার মায়ের কাছ থেকে শিশুটিকে নিয়ে যায় ৩০ বছরের ওই যুবক। সম্পর্কে ওই যুবক ভাইপো হওয়ায় শিশুটিকে তার হাতে দিতে কোনও আপত্তি করেনি মা। কিন্তু ২ ঘন্টা পেরিয়ে যাওয়ার পরও শিশুটিকে না পাওয়ায় খোঁজ শুরু করে তার পরিবার। পাওয়া যায়নি ওই যুবককেও। দীর্ঘক্ষণ গ্রামবাসীদের খোঁজাখুজির পর দেখা যায়। অচেতন অবস্থায় শিশুটি পড়ে রয়েছে বিয়ের মণ্ডপের কাছেই একটি জায়গায়। তার পাশেই বসে রয়েছে অভিযুক্ত। এরপর দ্রুত শিশুটিকে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। সেখানেই মৃত্যু হয় শিশুটির। ঘটনার পর এলাকা থেকে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে অভিযুক্ত ওই যুবক পাপ্পু। পুলিশে অভিযোগ দায়ের করার পর গ্রেফতার করা হয় ওই যুবককে। পরিবারের তরফে অভিযোগ তোলা হয়, শিশুটিকে ধর্ষণ করেছে ওই অভিযুক্ত। যদিও পুলিশের তরফে বলা হয়েছে মেডিকেল রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত ওই শিশুকে ধর্ষণ করা হয়েছে কিনা তা এখনই বলা যাবে না।

যদিও শিশুটির পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ধর্ষণ, অপহরণ, খুন সহ পসকো আইনে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে। আপাতত মেডিকেল রিপোর্টের অপেক্ষা করছে পুলিশ। রিপোর্ট এলেই উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here