ডেস্ক: মহারাষ্ট্রের ধুল জেলায় এক ভয়ঙ্কার গণহিংসার সাক্ষী রইল গোটা দেশ। রাইনপাড়া গ্রামে ৫ অপরিচিত ব্যাক্তিকে ছেলেধরা সন্দেহে পিটিয়ে মারার অভিযোগ উথেছে।আর সেই অভিযোগের ভিত্তিতে ২৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

উল্লেখ্য গত কয়েকদিন ধরে ওই এলাকায় শিশু অপহরণকারীদের একটি দল ঘোরাফেরা করছে বলে গুজব রটে ছিল। পুলিশ জানিয়েছে, রবিবার ওই ৫ ব্যাক্তি বাসে করে আদিবাসী অধ্যুষিত রাইনপাড়ায় আসেন। রবিবার ছিল হাটবার, তাই সেখানে তাঁরা গেছিল। অনেক গ্রামবাসীরাই এই হাটে জড়ো হয়ে ছিলেন। সেই ৫ জন ব্যাক্তিদের মধ্যে একজন একটি শিশুর সঙ্গে কথা বলে। এরপর গ্রামবাসীরা তাদের শিশু অপহরণকারী ভেবে সন্দেহ করে। সন্দেহের বশেই গ্রামবাসীরা তাঁদের ওপর ঝাপিয়ে পড়ে। তাদের কোনও রকম বক্তব্য না শুনেই শুরু হয় গণপ্রহার যতক্ষণ পযন্ত ওই ব্যাক্তিরা মৃত্যুর কোলে ঢোলে না পড়ে ততক্ষণ পযন্ত বেধড়ক মারধর চালিয়ে যায় গ্রামবাসীরা।

এই ঘটনার প্রেক্ষিতে, এলাকা চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। গ্রামবাসীরা সবাই পলাতক। ধুল জেলার এসপি এম রাজকুমার জানিয়েছেন, এই ঘটনার পর থেকেই প্রায় ২৫০ জনের বেশী গ্রামবাসীরা পালিয়ে গেছে। তাদের মধ্যে থেকে ২৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ এবং বাকিদের খোঁজে তল্লাশি চলচ্ছে।

অন্যদিকে, মহারাষ্ট্রের গ্রামোন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী দীপক কেসরকার বলেন,’ আমি সকলের কাছে আবেদন করছি কোনও গুজবে পা দেবেন না। নিজেদের হাতে আইন তুলে নেবেন না । কিছু হলে পুলিশকে জানান।’
প্রসঙ্গত,এই প্রথম নয়, আগে বহু এরকম গণহিংসার ঘটনা ঘটেছে মহারাষ্ট্রে। কখনও গো মাংস নিয়ে ,আবার কখনও লাভ-জেহাদের নামে পিটিয়ে খুন করার অভিযোগ উঠেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here