মহানগর ওয়েবডেস্ক: করোনা মৃত্যু নিয়ে সংখ্যার ধোঁয়াশা অব্যাহত রাখল রাজ্য সরকার। এদিন প্রথমবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা জানান, রাজ্যে এখনও পর্যন্ত ৫৭ জনের মৃত্যু হয়েছে, যাদের মৃত্যুর সঙ্গে কোভিড ১৯ সংক্রমণের যোগ রয়েছে। তবে এদের মধ্যে ১৮ জনের মৃত্যুর কারণ করোনা হিসেবে নিশ্চিত করেছে রাজ্যের গড়ে দেওয়া অডিট কমিটি। বাকি ৩৯ জনের শরীরে অন্যান্য রোগের উপসর্গ ছিল। ফলে তাদের মৃত্যুর কারণ করোনা সেটা এখনই বলা যাবে না। সরকারি হিসেবে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা থাকছে ১৮-ই।

কেন্দ্রের আন্তঃরাজ্য প্রতিনিধি দল এদিন জোড়া চিঠি দিয়ে রাজ্যের করোনা মৃত্যুর সংখ্যা ও তা গণনার পদ্ধতি জানতে চেয়েছিল রাজ্যের কাছে। তারপরই এদিন সাংবাদিক বৈঠকে প্রথমবার নবান্নর তরফে স্বীকার করা হয়, রাজ্যের ৫৭টি মৃত্যুতে কোভিড ১৯ যোগ রয়েছে। তবে তার মধ্যে করোনার কারণে ১৮টি মৃত্যুই অডিট কমিটি নিশ্চিত করেছে। বাকি মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, কেন্দ্রীয় আন্তঃরাজ্য প্রতিনিধিদলের প্রধান অপূর্ব চন্দ্র নিজের চিঠিতে এই অডিট কমিটির বিষয়ে একাধিক প্রশ্ন করেছিলেন রাজ্যকে। জানতে চাওয়া হয়, কিসের ভিত্তিতে এই অডিট কমিটি গঠন করা হল? পাশাপাশি রাজ্যের কাছে আরও জানতে চাওয়া হয়েছে, এই ডেথ কমিটি কি আইসিএমআর-র নিয়ম মেনে কাজ করছে এবং তথ্য দিচ্ছে?

এই চিঠির পরই এদিন প্রথম নবান্নর তরফে জানানো হল রাজ্যের ৫৭টি মৃত্যুতে কোভিড যোগ রয়েছে। এদিন কেন্দ্রীয় দলকে সহযোগিতা নিয়ে প্রশ্ন করা হলে মুখ্যসচিব বলেন, সমন্বয় সাধনের জন্য এসেছে কেন্দ্রীয় দল। কেন্দ্রীয় দলের প্রশ্নের উত্তর স্বাস্থ্য দপ্তর দেবে। কেন্দ্রীয় দলকে সবসময় সহযোগিতা করছি। মৃত্যুর কারণ নির্বাচনের ক্ষেত্রে কেন অডিট কমিটি গঠন করা হয়েছে, তার উত্তর দেবে স্বাস্থ্য বিভাগ।

রাজীব সিনহা আরও বলেন, আমরা একমাত্র মানুষের কাছে দায়বদ্ধ। তারা সঠিক পরিষেবা পাচ্ছে কিনা এটাই আসল পরীক্ষা। কেন্দ্রের কাছ থেকে সাহায্য পাচ্ছি না। বকেয়া টাকা মেটালে আরো ভালোভাবে কাজ করতে পারি। রেশনে কেন্দ্রের থেকে ৪০ শতাংশ পাইনি। কেন্দ্রের কাছ থেকে এখন পর্যন্ত নামমাত্র টাকা রাজ্য পেয়েছে বলেও জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here