ডেস্ক: ২৫ বছরের এক মহিলাকে ধর্ষণের অভিযোগে ইতিমধ্যেই পুলিশি তল্লাশি শুরু হয়েছে স্বঘোষিত ধর্মগুরু দাতী মহারাজের খোঁজে। এবার তাঁর আশ্রম থেকে এলো চাঞ্চল্যকর খবর। রাজস্থানে দাতি মহারাজের ওই আশ্রম থেকে নিখোঁজ হয়ে গিয়েছেন প্রায় ৬০০ তরুণী। এবং বর্তমানে অইয়াস্রমে রয়েছেন মাত্র ১০০ জন তরুণী।

দাতই মহারাজের কাছ থেকে জানা গিয়েছিল তার আশ্রমে প্রায় ৭০০ জন মহিলা আছেন, কিন্তু ৭০০ জনের মধ্যে এই মুহূর্তে মোট ১০০ জন থাকায় এই মুহূর্তে ঘনীভূত হয়েছে রহস্য। বাকি তরুণীরা কোথায় গেলেন তার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। অন্য কোথাও তাঁদের সরিয়ে দেওয়া হয়েছে নাকি, আশ্রম ছেড়ে বাড়িতে চলে গিয়েছেন তাঁরা তার তদন্ত শুরু হয়েছে। তবে অন্য কোথাও ওই মহিলাদের সরিয়ে দেওয়া হয়েছে বলেই মনে করছে পুলিশ। কিন্তু কোথায় তাঁদের সরিয়ে দেওয়া হল তা জানার চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য, ভারতে স্বঘোষিত ধর্মগুরুর বিরুদ্ধে একের পর এক ধর্ষণের অভিযোগ তোলপাড় হয়েছে গোটা দেশ। স্বঘোষিত ধর্মগুরুদের সেই তালিকায় সাম্প্রতিকতম ভন্ড গুরু হলেন রাজস্থানের এই দাতী মহারাজ। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ বছর দুয়েক আগে ফতেপুর বৈরি এলাকার জনপ্রিয় শনিধাম মন্দিরের আশ্রমে বছর পঁচিশের এক তরুণীকে ধর্ষণ করেছেন তিনি। ওই তরুণীর অভিযোগের ভিত্তিতে ইতিমধ্যেই ওই ভণ্ড গুরুর বিরুদ্ধে আইপিসি ৩৫৪, ৩৭৬ এবং ৩৭৭ ধারায় অভিযোগ দায়ের করেছে পুলিশ। কিন্তু অভিযোগ দায়ের হয়ার পর থেকেই বেপাত্তা ওই ধর্মগুরু। তার খোঁজে ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে পুলিশি তল্লাশি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here