ডেস্ক: জেলায় জেলায় বাড়তে থাকা ডাক্তারদের অভাব ঘোচাতে এবার নতুন পদক্ষেপ নিতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিভিন্ন জেলায় নতুন মেডিক্যাল কলেজ তৈরির কথা আগেই ঘোষণা করেছিলেন দলনেত্রী। এবার সেই নতুন মেডিক্যাল কলেজগুলির আসন সংখ্যাও জানিয়ে দেওয়া হল।

জানা গিয়েছে রাজ্য জুড়ে তৈরি হবে আরও সাতটি মেডিক্যাল কলেজ। এই সাতটির মধ্যে ৫টি কলেজ তৈরির কাজ ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে জোরকদমে। এবার রাজ্য সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, প্রতিটি কলেজে ১০০টি করে আসন তৈরি করা হবে। অর্থাৎ ৭টি মেডিক্যাল কলেজে ৭০০টি নতুন আসন তৈরি হবে। যে পাঁচটি মেডিক্যাল কলেজ তৈরি ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে সেগুলি হল কোচবিহার, পুরুলিয়া, ডায়মন্ড হারবার, রায়গঞ্জ ও রামপুরহাট। অন্য দুটি কলেজ তৈরি হবে জলপাইগুড়ি ও আরামবাগে। তার কাজও শীঘ্রই শুরু হবে বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে রাজ্য সরকার তরফে।

প্রসঙ্গত, বিধানসভায় বাজেট পেশের সময় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছিল, রাজ্যে মেডিক্যাল কলেজের সংখ্যা বেড়ে ১৪টি হবে। প্রশাসনিক বৈঠকেও বহুবার লক্ষ্য করা গিয়েছে স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলে চিকিৎসা ব্যবস্থার উপর বিশেষ জোর দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর কথা মতো খুব শিগগিরি রাজ্য পেতে চলেছে ৪২টি সুপার স্পেশ্যালিটি হসপিটাল। যার মধ্যে ইতিমধ্যেই ৩৯টি হাসপাতাল তৈরির কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। এই হাসপাতালগুলি তৈরি হলে রাজ্যের গ্রামাঞ্চলের চিকিৎসা ব্যবস্থার যে আমুল পরিবর্তন আসবে তা আলাদা করে বলার প্রয়োজন পড়ে না।

এই সমস্ত প্রকল্প বাস্তবায়িত করতে বাড়ানো হয়েছে চিকিৎসা ক্ষেত্রে বরাদ্দ অর্থও। গত বছরের তুলনায় এ বছর আর্থিক বরাদ্দ বেড়েছে প্রায় ১০০০ কোটি। ২০১৭-১৮ সালে যা ছিল ৭৬০৩.৮২ কোটি, ২০১৮-১৯ সালের জন্য সেই অর্থ বেড়ে হয়েছে ৮৭৭৩.৫২ কোটি টাকা। এখানেই শেষ নয়, বাড়ানো হয়েছে ওষুধ ও শল্য চিকিৎসার যন্ত্রপাতির সরঞ্জামের বরাদ্দও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here