ডেস্ক:আটজন মিলে গণধর্ষণ করার অভিযোগ উঠল আট মাসের অন্তঃসত্ত্বাকে। নারকীয় এই ঘটনাটি ঘটেছে মহারাষ্ট্রের সাতারার সাঙ্গলিতে। জানা গিয়েছে, ওই মহিলা তাঁর স্বামীর সঙ্গে ব্যবসার জন্য তাসগাঁওয়ের তুর্চি ফাটাতে গিয়েছিলেন।

সূত্রের খবর, অভিযোগকারী ওই দম্পতি নিজেদের হোটেলের ব্যবসা বাড়ানোর জন্য অন্য এক দম্পতির খোঁজ করছিলেন। ঠিক তখনই ওই হোটেলের এক কর্মী মুকুন্দ তাদের জানায়, কাজ করার জন্য এক দম্পতি রাজি হয়ে গেছে। এরপরেই মুকুন্দ তাঁদের তুর্চি ডেকে পাঠায় সঙ্গে ২০ হাজার টাকাও আনতে বলে। অভিযুক্তের কথা মতই ওই দম্পতি রওনা দিয়ে দেয় তুর্চিতে। ওদিকে অভিযুক্ত মুকুন্দের মাথায় চলে অন্য রকম বুদ্ধি।

তুর্চিতে পা রাখতে না রাখতেই মুকুন্দ তার দলবল নিয়ে চড়াও হয়ে যায় তাদের ওপর। পাইপ ও লাঠি দিয়ে তাদের বেধড়ক মারা হয়। তাদের থেকে টাকা ও গয়নাও লুঠ করে নেওয়া হয়। তারপর তারা ওই ব্যবসায়ীকে একটি গাড়ির মধ্যে আটকে রেখে দেয়। এরপরই ওই ব্যবসায়ীর স্ত্রীকে ৮ জন মিলে গণধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। ধর্ষণ করে খান্ত না থেকে অভিযুক্তরা ধমকায় তারা যেন এই বিষয়ে মুখ না খোলে।

আক্রান্ত দম্পতি কোনও রকমে তাসগাঁও থানায় গিয়ে গোটা ঘটনাটি পুলিশকে জানিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন। ধর্ষিতা মহিলা ৮ জনের মধ্যে চারজনের নাম পুলিশকে জানায়। যাদের মধ্যে রয়েছে, মুকুন্দ,সাগর, জাভেদ খান এবং বিনোদ। যদিও এই ঘটনার ৪৮ ঘন্টা কেটে যাওয়ার পরেও এখনও পর্যন্ত পুলিশ কাউকে গ্রেপ্তার করত