ডেস্ক: দেশের রাজধানী নয়াদিল্লি আসলে যে ‘ধর্ষণের রাজধানী’তে পরিণত হয়েছে ফের মিলল সেই প্রমাণ। পৈচাশিক বর্বরতার অন্যন্য নির্দশন দিয়ে এবার ধর্ষণের শিকার আট মাসের দুধের শিশু, তাও নিজের তুতো দাদার হাতে। উত্তর পশ্চিম দিল্লির নেতাজি সুভাষ প্লেসে আটমাসের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার করা হল শিশুটির জ্যাঠতুতো দাদকে।

পুলিশ জানিয়েছে, নির্যাতিতা শিশুটি বর্তমানে কলাবতী সারন হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি রয়েছে, গতকাল তার অস্ত্রোপচারও হয়েছে। শিশুটির অবস্থা বর্তমানে স্থিতিশীল। পুলিশি জেরার মুখে ধৃত ব্যক্তি স্বীকার করে নিয়েছে মদ্যপ অবস্থায় নিজের ছোট্ট বোনকে ধর্ষণ করার কথা।

নির্যাতিতার বাবা পেশায় দিনমজুর, তিনি পুলিশকে জানান আট মাসের দুধের শিশুকে দাদা বৌদির হেফাজতে রেখে কাজে গিয়েছিলেন তারা। সেই সময় বাড়িতে ছিল ওই দম্পতির দাদা বৌদির ২৮ বছরের ছেলে। কিন্তু কাজ সেরে বাড়ি ফিরে আসার পর তারা দেখেন শিশুটির জামায় ও বিছানায় রক্তের দাগ লেগে রয়েছে। কোথা থেকে এলো রক্তের দাগ? অভিযুক্তর মা-কে এই প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, শিশুটি প্রস্রাব করেছে এবং তার সঙ্গে সেই রক্ত বেরিয়েছে। কিন্তু নির্যাতিতার মায়ের সন্দেহ হওয়ায় শিশুটিকে হাসপাতালে নিয়ে যান তিনি। সেখানে নিয়ে গেলে ডাক্তাররা পরীক্ষা করে জানান, তাঁর মেয়ের উপর যৌন নিগ্রহ করা হয়েছে।

ফুটফুটে মেয়েকে হাসপাতালে ভর্তি করে পুলিশের দ্বারস্থ হন শিশুটির মা। তাদের অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্তকে পাকড়াও করে পুলিশ। এরপরই পুলিশি জেরার মুখে ধর্ষণের কথা স্বীকার করে নেয় অভিযুক্ত। অন্যদিকে আইসিইউতে এখনও মরণ-বাঁচন লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে নির্যাতিতা শিশুটি।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here