ডেস্ক: বৃহস্পতিবারই সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের নতুন ভিডিও প্রকাশ করেছে নরেন্দ্র মোদী সরকার। আর এইদিনই পাক অধিকৃত কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর ৮টি লঞ্চপ্যাড তৈরির খবর উঠে এসেছে শিরোনামে। পুনরায় পাক সেনার মদতপুষ্ট জঙ্গিদের বাড়বাড়ন্ত লক্ষ্য করা যাচ্ছে এই অঞ্চলে।

সূত্রের খবর, ২৭টি লঞ্চ প্যাড থেকে ২৫০-র বেশি সন্ত্রাসবাদী জম্মু-কাশ্মীরে ঢোকার চেষ্টায় রয়েছে। এই লঞ্চ প্যাডগুলির মধ্যে লিপা, জুরা ও বারারকোটে উপস্থিতি রয়েছে লস্কর-ই-তৈবার। অন্যদিকে, পাক অধিকৃত কাশ্মীরের ফরওয়ার্ড কাহুতায় বিরাজ করছে হিজবুল মুজাহিদিন। জানা যাচ্ছে, যে কটি লঞ্চপ্যাড তৈরি করা হয়েছে, তাদের মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে লিপা। ২০১৬ সালে ভারতের সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের সময় সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস হয়ে যায় এই লিপা লঞ্চপ্যাড। জানা যাচ্ছে, বুরহান ওয়ানির সময় পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ১৪ টি লঞ্চপ্যাড ছিল। কিন্তু বুরহানের মৃত্যুর পর আশ্চর্যভাবে সেই সংখ্যাটা গিয়ে দাঁড়ায় ১৯ টিতে। ১৪ টি লঞ্চপ্যাড থেকে প্রায় ১৬০ জন সন্ত্রাসবাদী সক্রিয় ছিল। এখন আরও ৮টি লঞ্চপ্যাডের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় সন্ত্রাসের আশঙ্কা অনেকগুণ বেড়ে গেল বৈকি।

ভারতের সঙ্গে সুসম্পর্ক গড়া নিয়ে বার্তা দিয়েছিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ভারত একধাপ এগোলে পাকিস্তান দুই ধাপ এগোবে বলে আশ্বাস দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু বারংবার হামলার ঘটনা, পাক প্রধানমন্ত্রীর সেই বার্তায় জলই ঢেলে দিয়েছে। নিউইয়র্কের ইউএনজিএ সভার মাঝে ভারত পাকিস্তানের সঙ্গে বৈঠকের ভাবনা রাখলেও গত সপ্তাহে সীমান্তে ৩ পুলিশকর্মীর নৃশংস হত্যার পরেই তা বাতিল করে। আর এরমধ্যেই পাক অধিকৃত কাশ্মীরে নতুনভাবে লঞ্চপ্যাডের বাড়বাড়ন্ত ভারতের আকাশে সন্ত্রাসের কালো মেঘই তৈরি করছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here