মহানগর ওয়েবডেস্ক: উত্তরপ্রদেশের জমি বিবাদকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষ। আর তাঁর জেরেই গুলির লড়াইয়ে মৃত্যু হলো ৯ জনের আহত কুড়ির বেশি। যার মধ্যে রয়েছেন তিনজন মহিলাও জড়িত সন্দেহে দু’জনকে আটক করেছে পুলিশ। পুলিশ সূত্রের খবর উত্তরপ্রদেশের সোনভদ্রা জেলার উভা গ্রামে জমি নিয়ে দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষ পৌঁছায় চরমে। ঘটনার সূত্রপাত এদিন সকালে মধ্যপ্রদেশ লাগোয়া সীমান্তবর্তী গ্রাম উভায়। বুধবার সকালে হঠাৎই পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে। স্থানীয় সূত্রের খবর জনা শয়েক লোক ঘটনা স্থলে জমায়েত করে ধারালো অস্ত্র ও বন্দুক নিয়ে।

পুলিশ জানায়, বুধবার জেলার উভা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। উভা গ্রামের প্রধান দুই বছর আগে কেনা ৩৬ একর কৃষিজমি সঙ্গীদের নিয়ে দখল করতে যান। এতে গ্রামবাসীরা বাধা দিলে তাদের ওপর নির্বিচার গুলি চালান তিনি। গ্রামের নির্জন এলাকা ঘোরাওয়ালে এ ঘটনাটি ঘটেছে। গ্রাম প্রধানের কেনা জমি দখলে গেলে স্থানীয় গ্রামবাসীরা তাকে বাধা দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে গ্রাম প্রধানের সঙ্গীরা গুলি চালায় নিরস্ত্র গ্রামবাসীদের উপর।

এদিন জেলা শাসক অনিত কুমার আগরওয়াল ভারত সমাচারকে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে জানান, বুধবার সকালে হঠাৎই মধ্যপ্রদেশের সীমান্তবর্তী এই গ্রামে গুলির লড়াই শুরু হয় দুই দলের মধ্যে। ঘটনার তদন্তে নেমে স্থানীয় পুলিশ জানতে পারে উপভা গ্রামে একটি জমি সংক্রান্ত বিবাদের জেরে দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়। জেলা শাসকের তরফে জানানো হয়, আহতদের ততক্ষনাৎ নিয়ে যাওয়া হয় স্থানীয় হাসপাতালে। পরে অবস্থার অবনতি ঘটলে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয় তাঁদের। জেলা শাসক ও পুলিশ সুপারের তৎপরতায় উত্তরপ্রদেশ পুলিশের এক বিশাল বাহিনী ঘটনা স্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি সামাল দেয়।

ঘটনাটির বিষয়ে উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ মৃতের পরিবারের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করে বলেন, এমন ঘটনা সত্যিই খুবই দুর্ভাগ্যজনক ভবিষ্যৎতে যাতে এমনটা আর না ঘটে সেদিকে নজর রাখবে প্রশাসন এমনটাই প্রতিশ্রুতিদেন আদিত্যনাথ। তিনি জেলাশাসক ও পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দেন, আহতেদের চিকিৎসার বিষয়ে অতিরিক্ত নজরদারি দেওয়ার জন্য এবং একই সঙ্গে অপরাধীদের সনাক্ত করে তাঁদের শাস্তির ব্যবস্থা করার কথাও জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here