ডেস্ক: কারখানা বন্ধের দাবিতে প্রতিবাদ মিছিল, আর সেই মিছিলেই গুলি চলল পুলিশের। ঘটনার জেরে মৃত্যু হয়েছে ৯ প্রতিবাদীর আহতের সংখ্যা ২০ জনেরও বেশি। মঙ্গলবার ঘটেছে তামিলনাড়ুর বন্দর শহর টুইটিকোরিন এলাকায়। ঘটনার জেরে এলাকায় আতঙ্ক ছড়ানোর পাশাপাশি, শুরু হয়েছে রাজনৈতিক বাদানুবাদও।

তামিলনাড়ুর ওই এলাকার একটি তামার কারখানা বন্ধের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে প্রতিবাদ জানিয়ে আসছিলেন স্থানীয় মানুষরা। তাঁদের দাবি ছিল, ওই কারখানা চালু হলে বাতাসে দূষণের পরিমাণ বাড়বে। আর সেই দূষণের ফলে মানুষের মৃত্যুও হতে পারে। কারখানা বন্ধের দাবিতে প্রতিবাদীরা এআইএডিএম সরকারকে চিঠিও লেখে। তা সত্ত্বেও বন্ধ হয়নি কারখানা। উল্টে ওই কারখানা চত্বরে জারি করা হয় ১৪৪ ধারা। এরপর মঙ্গলবার কারখানা বন্ধের দাবিতে মিছিল বের করেন প্রতিবাদীরা। অভিযোগ সেই মিছিলেই নির্মমভাবে গুলি চালায় পুলিশ। যার জেরেই মৃত্যু হয়েছে ৯ জন প্রতিবাদীর। যদিও পুলিশের তরফে গুলি চালানোর কথা সম্পুর্ন অস্বীকার করা হয়েছে।

পুলিশের দাবি, প্রায় ৫ হাজার প্রতিবাদীর ওই মিছিল ১৪৪ ধারা উপেক্ষা করে এগিয়ে আসে। বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলে পাল্টা ইঁট পাথর ও সরকারী সম্পত্তি ভাঙচুরের চেষ্টা করেন প্রতিবাদীরা। পাল্টা টিয়ার গ্যাসের শেল ছোঁড়ে পুলিশ। এরফলেই ছত্রভঙ্গ হয়ে পড়ে জনতা, পালাতে গিয়েই পদপিষ্ট হয়ে মৃত্যু হয়েছে ওই ৯ জনের। কোনও গুলি চালানো হয়নি। তবে পুলিশ গুলি চালানোর কথা অস্বীকার করলেও কার্যত গুলি চালানোর কথা স্বীকার করে নিয়েছেন তামিলনাড়ু সরকারের মন্ত্রী ডি জয়কুমার। তিনি বলেন, ‘গুলিতে যারা মারা গিয়েছেন তাঁদের ক্ষতিপূরন দেওয়া হবে। আবার পুলিশের পক্ষ নিয়ে তিনি বলেন, মিছিল যেভাবে হিংসাত্মক হয়ে উঠেছিল তাতে গুলি চালানো ছাড়া পুলিশের অন্য কোনও উপায় ছিল না।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here