national news

Highlights

  • জীবনের ময়দানে সেঞ্চুরি হাঁকাতে বাকি আর মাত্র ৩ বছর
  • বিরোধীদের কাঁচকলা দেখিয়ে নির্বাচনী লড়াইয়ে ড্যাং ড্যাং করে জিতেও গেলেন বিদ্যাদেবী
  • ভারতবর্ষের ইতিহাসে এমন ঘটনা বেনজির তো বটেই চরম বিশ্বয়করও

মহানগর ওয়েবডেস্ক: জীবনের ময়দানে সেঞ্চুরি হাঁকাতে বাকি আর মাত্র ৩ বছর। বয়সের ভারে নুইয়ে পড়েছে শরীর। আজকাল মুখের বলিরেখাতেও যেন বয়স গোনা যায় বিদ্যাদেবীর। ফুরিয়ে আসা জীবনখাতায় গতানুগতিক সমাজ যতই তাঁকে পিছনের সারিতে ছুঁড়ে ফেলুক না কেন? মনের দিক থেকে বোধহয় আজও যুবতী তিনি। নাহলে তিন অঙ্কের ক্ষুদ্রতম সংখ্যা ছুঁতে চলা বিদ্যাদেবী নির্বাচনী লড়াইয়ে নামবেন কেন? আর শুধু ভোটের লড়াই নয়, বিরোধীদের কাঁচকলা দেখিয়ে নির্বাচনী লড়াইয়ে ড্যাং ড্যাং করে জিতেও গেলেন বিদ্যাদেবী। ভারতবর্ষের ইতিহাসে এমন ঘটনা বেনজির তো বটেই চরম বিশ্বয়করও।

ঘটনা রাজস্থানের সিকার। এই গ্রামে পঞ্চায়েত নির্বাচনের জন্য মনোনয়ন তালিকা জমা পড়ার পর সবারই চোখ আটকায় বিদ্যাদেবীর নামে। ৯৭ বছর বয়সী দৃঢ়চেতা বৃদ্ধা নেমেছেন ভোটের লড়াইয়ে। হঠাৎ বুড়ো বয়েসের ভীমরতি ভেবে বিরোধীদের তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য-মস্করা সবই ছিল তাঁর জন্য। তবে সেসবকে বিশেষ পাত্তা দেননি আশাদেবী। এরপর নির্ভাচনী ফল ঘোষণার পর দেখা গেল, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীকে ২০৭ ভোটে হারিয়ে গ্রামপঞ্চায়েত নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন অশীতিপর।


সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ওই বৃদ্ধা বলেন, ভারতীয় সেনার মেজর পদে থাকা তাঁর স্বামী শিবরাম সিং সেই ১৯৯০ সাল থেকে টানা ২৫ বছর এই গ্রামের পঞ্চায়েত প্রধান ছিলেন। তাঁর মৃত্যুর পর আমি কখনও ভাবিনি রাজনীতিতে আসব। তবে শেষ বয়েসে একবার মনে হল নির্বাচনে দাঁড়াব। জিতব ভাবিনি। তবে জিতে আমি ভীষণ খুশি। গ্রামের জন্য অবশ্যই ভাল কিছু করার চেষ্টা করব। আমার তো আর নিজের জন্য করার মতো কিছুই নেই।’ এদিকে নির্বাচন কমিশনের তথ্য অনুযায়ি ৮৪৩ টি ভোট পেয়েছেন বিদ্যাদেবী। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মিনা পেয়েছেন ৬৩৬ টি ভোট। নির্বাচনী তথ্য অনুযায়ী বিদ্যাদেবীর বয়স ১ জানুয়ারি ১৯২৩।

অবশ্য বিদ্যাদেবীই প্রথম নয়, শুক্রবারই রাজস্থানে পঞ্চায়েত নির্বাচনে দাঁড়িয়ে সংবাদ শিরোনামে এসেছেন পাকিস্তান থেকে ভারতে এসে সদ্য নাগরিকত্ব পাওয়া নীতা কুমারী। সিএএ আইন নিয়ে দেশজুড়ে যখন উত্তাল পরিস্থিতি ঠিক সেই সময়ে গত বছরের সেপ্টেম্বরে ভারতের নাগরিকত্ব পেয়েছিলেন নীতা। এরপর টঙ্ক জেলায় নিজের গ্রামে ভোটের লড়াইয়ে নামেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here