west midnapur news

নিজস্ব প্রতিনিধি,পশ্চিম মেদিনীপুর: ডেঙ্গু সঙ্গে সঙ্গেই রাজ্যে আতঙ্কের চাদর বিছিয়েছে স্ক্রাব টাইফার্স৷ এবার স্ক্রাব টাইফার্সেরই বলি হল ১৪ মাসের এক শিশু৷ পশ্চিম মেদিনীপুরের ডেবরা এলাকায় প্রত্যুষা মিশ্র নামে এক শিশু গত এক সপ্তাহ ধরে জ্বরে আক্রান্ত ছিল৷ তাকে ভর্তি করা হয়েছিল ডেবরা হাসপাতালেও৷ রোগ ধরা পড়ার পরেই ওই শিশুটিকে স্থানান্তরিত করা হয় মেদিনীপুর সংলগ্ন একটি বেসরকারী নার্সিংহোমে৷ সেখানে ভর্তি থাকাকালীনই আজ সকালে মৃত্যু হয় তার৷ শিশুকন্যার পরিবারের অভিযোগ, আজই হাসপাতাল থেকে ছুটি পাওয়ার কথা ছিল তার৷ তবে ছুটির ঠিক আগে তাকে একটি ইঞ্জেকশন দেওয়া হয়৷ এরপরই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে সে৷

এই ঘটনার পরই হাসপাতালে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে মৃত শিশুটির পরিবার৷ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি সামাল দেয় পুলিশ৷ শিশুর পরিবারের অভিযোগ, ইঞ্জেকশনের অতিরিক্ত ডোজের কারণেই শিশুটির মৃত্যু হয়েছে। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি অন্য৷ তাদের দাবি, শিশুটির মৃত্যু হয়েছে স্ক্রাব টাইফাসে। এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার পর হৃদরোগে মৃত্যু হয় শিশুটির। গোটা ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায় হাসপাতাল চত্বরে৷

west midnapur news

ধীরে ধীরে থাবা শক্ত করছে স্ক্রাব টাইফার্স৷ প্রসঙ্গত, এর আগেও স্ক্রাব টাইফার্সে মৃত্যু হয়েছিল মুর্শিদাবাদের দুজনের৷ দশম শ্রেণির ছাত্রী তামান্না ফিরদৌস ও ৪৬ বছরের শ্যামল প্রামাণিকের মৃত্যু হয়েছিল স্ক্রাব টাইফাসে আক্রান্ত হয়েই। চিকিৎসকরা মতে, ঝোপঝাড়ে জন্মানো এক ধরনের মাকড়ের কামড় থেকে স্ক্রাব টাইফাসের জীবাণু শরীরে ঢোকে৷ যার পর জ্বর আসে। দিন সাতেকের জ্বর আর বমির পর দ্বিতীয় সপ্তাহে শুরু হয় শারীরিক জটিলতা। যার ফলে একে একে বিভিন্ন অঙ্গ বিকল হতে থাকে। কিন্তু প্রথম থেকে চিকিৎসা না করালে যখন তখন মৃত্যু হতে পারে রোগীর৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here