ডেস্ক: এক স্মৃতিহারানো বৃদ্ধকে ফিরে পেল তাঁর পরিবার। উল্টোডাঙ্গা থানা এলাকায় অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায় অজ্ঞাত পরিচয়ের এক ব্যক্তিকে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন যে, অজ্ঞাতপরিচয়ের এক বয়স্ক ব্যক্তি অর্ধচেতন অবস্থায় পাতিপুকুর বাসস্ট্যান্ডের পাশের ফুটপাথে পড়েছিলেন। সঙ্গে সঙ্গে তাঁরা উল্টোডাঙ্গা থানায় খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ এসে ওই বৃদ্ধকে উদ্ধার করে। প্রথমেই তাঁকে আর জি কর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ওই বৃদ্ধ সুস্থবোধ করেন। জ্ঞ্যান ফিরলে বৃদ্ধের কাছে তাঁর পরিচয় জানতে চায় পুলিশ। কিন্তু ওই বৃদ্ধ নিজের নামটুকু ছাড়া আর কিছুই মনে করতে পারছিলেন না। নিজেকে তিনি দুর্গাদাস ব্যানার্জি বলে পরিচয় দেন। বৃদ্ধের আনুমানিক বয়স ৮০ বছর।

বৃদ্ধটির যখন কিছুই স্মরণে আসছিল না তখন পুলিশ নিজেদের মত করে পরিচয় উদ্ধারের চেষ্টা করে। বৃদ্ধটির পরনে ছিল সাদা জামা এবং লুঙ্গি। এই পোশাক দেখেই পুলিশ অনুমান করে যে বৃদ্ধ স্থানীয় এলাকারই বাসিন্দা। এরপর পুলিশ বৃদ্ধের ছবি নিয়ে আশেপাশে এলাকাগুলিতে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে।
হোয়াটস্যাপের মাধ্যমে দুর্গাদাস ব্যানার্জির ছবি ছড়িয়ে দেয় আশেপাশের থানাগুলিতে। কিছুক্ষনের মধ্যেই খবর আসে, লেকটাউন থানায় সুদেষ্ণা চ্যাটার্জি নামে এক মহিলা সকালে ফোন করে তাঁর বাবার নিখোঁজ হওয়ার খবর জানিয়েছিলেন। লেকটাউন থানার পুলিশ সুদেষ্ণাদেবীকে দুর্গাদাস বাবুর ছবি দেখায়। তখনই সুদেষ্ণা চ্যাটার্জি বাবাকে শনাক্ত করে।

সুদেষ্ণাদেবী পুলিশকে জানিয়েছেন যে তাঁর বাবা বেশ কিছুদিন ধরেই অ্যালজাইমার্স রোগে আক্রান্ত। বৃদ্ধ গ্রিনপার্কে মেয়ে-জামাইয়ের সঙ্গেই থাকতেন। সকালে কোনও এক ফাঁকে বাড়ি থেকে বেরিয়ে পরেন বৃদ্ধ। তারপর, চারপাশে খোঁজাখুঁজি করেও বাবার কোন হদিশ না পেয়ে থানায় মিসিং ডায়েরি করেন মেয়ে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here