kolkata news
Parul

নিজস্ব প্রতিনিধিবাপের বাড়ি থেকে টাকা আনতে বলেছিল স্বামী। তা না পারায় এক বধূকে গলা কেটে খুনের অভিযোগ। মৃতের নাম সাবিনা খাতুন। বছর একুশের ওই বধূর দেহ উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে উত্তর দিনাজপুরের ইটাহারের বাসাহারে। অভিযোগ পেয়ে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

ads

স্থানীয় সূত্রে খবর, বছর ছয়েক আগে ইটাহারের ছিলিংপুর গ্রামের হারুল রশিদের সঙ্গে বিয়ে হয় বাসাহারের সাবিনার। বিয়ের পরে পরেই শুরু হয় দাম্পত্য অশান্তি। হারুল সাবিনাকে বাপের বাড়ি থেকে টাকা নিয়ে আসতে বলত। সাবিনা বাপের বাড়ি থেকে টাকা আনতে অস্বীকার করত। এই নিয়েই হত অশান্তি। তার জেরে সাবিনাকে প্রায়ই বেধড়ক মারধর করা হত বলে অভিযোগ। হারুল ভিন রাজ্যে শ্রমিকের কাজ করে। লকডাউনের জন্য ইদানিং বাড়িতেই ছিল। ওই দম্পতির পাঁচ বছরের একটি কন্যা সন্তানও রয়েছে।

লকডাউনের জেরে হাতে কাজ না থাকায় সাবিনাকে হারুল প্রায়ই বাপের বাড়ি থেকে টানা আনতে বলত বলে অভিযোগ। যথারীতি টাকা আনতে অস্বীকার করতেন সাবিনা। সাবিনার পরিবারের অভিযোগ, ইদানিং অত্যাচারের মাত্রা বেড়ে গিয়েছিল। শারিরীক নিগ্রহের পাশাপাশি মানসিক নির্যাতনও করা হত। আজ, বুধবার সকালে বাড়ির অদূরে একটি ধানজমিতে সাবিনার গলাকাটা দেহ পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয়রা। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে দেহ উদ্ধার করে। বকরিদের সকালের এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়। হারুলের খোঁজে শুরু হয়েছে তল্লাশি।       

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here