ডেস্ক: অসহিষ্ণুতা কোথায় গিয়ে পৌঁছেছ, তার জ্বলন্ত উদাহরণ হতে পারে অমানবিক এই ঘটনাটি৷ রানিকুঠির একটি ক্লিনিকে শহরের নামী চিকিৎসকের কাছে দাঁত তুলতে গিয়েছেল ৬ বছরের ছোট্ট শিশু কন্যা৷ পরিণামে বেদম মার খেয়ে ফিরতে হল বাড়িতে৷ পরে ওই নামী দন্ত চিকিৎসক রণবীর সিনহার বিরুদ্ধে নেতাজিনগর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন শিশুটির পরিবারের লোকেরা৷ জামিন অযোগ্য ধারায় অভিযোগ দায়ের হয় চিকিৎসকের নামে। অভিযুক্ত রণবীর সিনহাকে থানায় তলব করে পুলিশ।

অভিযোগ, অনেক চেষ্টার পরেও কিছুতেই দাঁত তুলতে দিচ্ছিল না শিশুটি। ডাক্তারবাবু ধৈর্য হারিয়ে তাকে বেধড়র মার দেয়৷ চিকিৎসক শিশুকে জোর করে চেপে ধরে সজোরে চড় কষিয়ে দেয় তার গালে৷ এখানেই ক্ষান্ত থাকেনি ডাক্তারবাবু, হাতে থাকা দাঁত তোলার যন্ত্র দিয়েও সজোরে আঘাত করে শিশুটির শরীরে৷ ডাক্তারবাবু এতটাই রূদ্রমূর্তি ধারণ করে যে, ভয়ে শিশুটির মা চেম্বার থেকে কোনওরকমে তাকে নিয়ে বেরিয়ে আসে৷ ক্লিনিক কর্তৃপক্ষকে অভিযোগ করেও ফল না মেলায় থানায় যান তিনি৷

বয়স মাত্র ৬ বছর৷ খুব স্বাভাবিকভাবেই দাঁত তুলতে ভয় পাওয়ার কথা৷ তার ওপর অ্যানেশথেশিয়া দেওয়ার জন্য ইঞ্জেকশন বের করতেই ভয়ে শিকিয়ে যায় শিশুটি৷ ইঞ্জেকশন দিতে বাধা দেয় সে৷ আর তখনই মেজাজ হারিয়ে শিশুটিকে অমানবিকভাবে মারধর করে ডাক্তার রণবীর সিনহা৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here