kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, শিলিগুড়ি: টাকার লোভে বাড়ির মধ্যেই এক মাদক পাচারকারীকে আশ্রয় দিয়েছিল গৃহকর্ত্রী। তাঁর সামনে প্রতিদিনই বাড়িতে বসত মাদক পাচারের কারবার। নিজের মেয়েকেও ওই কারবারে যোগ দিতে বাধা দেয়নি গৃহকর্ত্রী। বেশ ভালোই জমে উঠেছিল মাদক পাচারের ব্যবসা। কিন্তু প্রতিবেশীদের হস্তক্ষেপে বেশিদিন ওই ব্যবসা চলল না। পুলিশ ওই বাড়িটিতে হানা দিয়ে মাদক পাচারকারীকে আটক করে। শিলিগুড়ির হাকিমপাড়ায় শুক্রবার সকালের এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। পুলিশ জানায়, ধৃতের নাম দিকসা। মাদক পাচার কারবারের বিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, শিলিগুড়ির হাকিমপাড়ার স্বামীজি সরণীর বাসিন্দা মিত্রা ঘোষ। কয়েকমাস আগে তার বাড়িতে দিকসা নামে এক ড্রাগ পাচারকারীকে আশ্রয় নেয়। মিত্রা ঘোষ জেনে-বুঝেই দিকসাকে আশ্রয় দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ। তারপর ক্রমে তাঁর বাড়িতে বিভিন্ন এলাকার যুবক-যুবতীদের আনাগোনা বাড়তে থাকে। প্রতিবেশীদের অভিযোগ, মিত্রা ঘোষের বাড়িতেই চলত মাদক পাচারের কারবার। সম্প্রতি আলিসা রায় চৌধুরি নামে স্থানীয় এক বাসিন্দা এব্যাপারে শিলিগুড়ি থানায় অভিযোগ জানান। মিত্রা ঘোষের মেয়েও ওই ড্রাগ পাচারের কারবারে জড়িয়ে পড়েছিলেন বলেও অভিযোগ আলিসার। তাঁর অভিযোগের ভিত্তিতেই এদিন পুলিশ আচমকা মিত্রা ঘোষের বাড়িতে হানা দেয়। যদিও গোটা বাড়ি তল্লাশি চালিয়েও ড্রাগ পাচারকারী দিকসার খোঁজ মিলছিল না। তখন আলিসাই পুলিশকে বাড়ির বাথরুমে তল্লাশি চালাতে বলেন। তাঁর সন্দেহ অমূলক ছিল না। পুলিশ দেখে বাথরুমের দরজা ভিতর থেকে বন্ধ। এরপর পুলিশকর্মীরা বাথরুমের দরজা ভেঙে দিকসাকে গ্রেফতার পাকড়াও করে।

পুলিশ সূত্রে খবর, দিকসার পাশাপাশি মিত্রা ঘোষের বাড়ি থেকে এক যুবতীকেও আটক করা হয়েছে। মাদক পাচারের কারবারের বিষয়ে দু’জনকেই জেরা করা হচ্ছে। মিত্রা ঘোষের বাড়িতে সত্যিই মাদক কারবার চলত কিনা, কোথা থেকে মাদক আসত এবং এই কারবারে মূল পাণ্ডা কে- সে সব খতিয়ে দেখছে শিলিগুড়ি থানার পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here