ডেস্ক: প্রথমে গণধর্ষণ, তারপর জীবন্ত পুড়িয়ে হত্যা করা হল পঞ্চম শ্রেণীর এক নাবালিকাকে। শুক্রবার ঘটনাটি ঘটেছে বিজেপি শাসিত রাজ্য অসমের নগাঁও জেলায়। এই ঘটনায় অভিযুক্ত সন্দেহে গ্রেপ্তার করা হয়েছে দুই নাবালক সহপাঠীকে। পলাতক জাকির হুসেন আরও এক অভিযুক্ত। তার খোঁজে এলাকা জুড়ে চিরুনি তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ। এই নৃশংস ঘটনায় স্তম্ভিত এলাকাবাসী।

পুলিশ সূত্রের খবর, স্থানীয় স্কুলের ৫ বছরের ছাত্রী ছিল ১২ বছরের ওই নাবালিকা। ঘটনাটি যখন ঘটে সেই সময় বাড়িতে একাই ছিল ওই নাবালিকা। তারই সুযোগ নিয়ে বাড়িতে ঢোকে ওই ছাত্রীর দুই নাবালক সহপাঠী হয় ওই গ্রামেরই বাসিন্দা এক ব্যক্তি। এরপর ঘরের ভিতরেই একের পর এক চলে গণধর্ষণ। মেয়েটি অন্য কাউকে ঘটনার কথা জানিয়ে দিতে পারে এই ভয়ে তার গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে পালায় অভিযুক্তরা। ঘটনার কথা জানাজানি হওয়ার পর শরীরের প্রায় ৯০ শতাংশ পোড়া অবস্থায় ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। এরপর শনিবার মৃত্যু হয় তার। ঘটনার তদন্তে নেমে গ্রেপ্তার করা সহপাঠী ওই দুই নাবালককে। অপর এক অভিযুক্ত জাকির হুসেনের খোঁজে তল্লাশি অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। খুব দ্রুত ওই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হবে বলে জানিয়েছেন নগাঁও জেলার এসপি শঙ্কর রাইমেধি।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে বৃহস্পতিবার এক মহিলাকে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছিল অসমের এই নগাঁও জেলার কামপুর এলাকায়। সেখানে ওই মহিলার স্বামীকে গাছে বেঁধে রেখে ধর্ষণ করে ৮ অভিযুক্ত। ঘটনার তদন্তে নেমে ৮ অভিযুক্তকেই গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here