রাজ্যসভায় ক্যাব বিল পাশের দিনে দিল্লিতে জন্ম নিল ‘নাগরিকতা’

0
nagarikata baby bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক:  দীর্ঘ সাত বছরের কঠিন লড়াই সফল হওয়ার পথে৷ আজ খুব খুশি পাকিস্তান থেকে আসা এক হিন্দু শরণার্থী পরিবার৷ কাকতালীয় ভাবে বুধবারেই তাঁদের পরিবারে নতুন অতিথি এল৷ এই দ্বিগুন আনন্দে তার নাম রাখা হল নাগরিকতা৷উত্তর দিল্লির মজনু কা টিলার পুনর্বাসন কলোনির ফুটোফাটা আশ্রয়স্থল থেকে পরিবারের এক সদস্য জানান, ‘আমরা সাত বছর ধরে নাগরিকত্ব পেতে ছুটছি এবং এখনও পাইনি। নাগরিকতার জন্মের পরে আমি নিশ্চিত ছিলাম যে আমরা নাগরিকত্ব পাবই।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সংসদে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (ক্যাব) পেশের পরেই পরিবারের এই দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান ঘটেছে বলেই বিশ্বাসী তারা। দ্রুতই কাঙ্খিত নাগরিকত্ব পাবে বলে আশাবাদী দিল্লির এই পরিবার এই আনন্দেই তাদের নবজাতক কন্যার নাম রেখেছে ‘নাগরিকতা’ অর্থাৎ নাগরিকত্ব । লোকসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হওয়ার আগে জন্মগ্রহণ করে এই শিশু, তবে নামকরণ হয় বিল পাস হয়ে যাওয়ার পরের সকালেই।

 

নাগরিকতার পরিবার ২০১২ সালে ভারতে এসেছিল। উত্তর দিল্লির মজনু কা টিলায় একটি পুনর্বাসনের কলোনিতে বাস করে এই পরিবার। নাগরিকতার মা আরতি জানান,‘আমরা সাত বছর ধরে নাগরিকত্ব পেতে ছুটছি এবং এখনও পাইনি। নাগরিকতার জন্মের পরে আমি নিশ্চিত ছিলাম যে আমরা নাগরিকত্ব পাবই।’ নাগরিকতার ঠাকুমা মীরা দাসের কথায়,বিলটি রাজ্যসভায় পাশ হয়ে যাবে এমনটা তাদের মনে হচ্ছিলই, সেই কারণেই তাদের পরিবার কন্যার নাম ‘নাগরিকতা’ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। লোকসভায় যাতে বিলটি দ্রুত পাস হয়ে যায় সেজন্য প্রার্থনাও করেছিলেন তিনি। তাঁর মতে, ‘মেয়ের জন্মের পর থেকেই প্রত্যেকে নাগরিকত্বের কথাই বলে আসছে, তাই আমরা ওর নাম নাগরিকতা রেখেছি। আমরা আশা করি আমরাও নাগরিকত্ব পাব। আমি সরকারকে ধন্যবাদ জানাতে চাই; আমরা এখানে সত্যিই অনেক সমস্যার সম্মুখীন হয়েছি।’

 

পাকিস্তান থেকে প্রাণভয়ে ভারতে আসা এই হিন্দু পরিবার যেন নতুন করে বাঁচার তাগিদ পেল৷ এমনিতে দিল্লির এই উদ্বাস্তু কলোনি বসবাসের উপযুক্ত নয়৷ তবু এখানের উদ্বাস্তুরা প্রাণে বাঁচেন৷ আর দিন গোনেন অচ্ছে দিন এর৷ ক্যাব বিলের পর আইন হওয়াটা শুধু সময়ের অপেক্ষা বলে বিশ্বাস করে তাঁদের আশাবাদী মন৷ তাঁরা আদালত কী জানেন না৷ জানতে চান না৷ তাঁর শুধু দেশের নাগরিক হয়ে সম্মানের সঙ্গে বাঁচতে চান৷ মজনু কা টিলা অঞ্চলে অস্থায়ী তাঁবু এবং প্লাস্টারহীন ইঁটের দেওয়াল আর অ্যাসবেস্টসের ছাদের নীচে আশেপাশের দেশ থেকে পালিয়ে আসা প্রায় ৭৫০ জন হিন্দুদের আশ্রয়স্থল। রোহিনী সেক্টর ৯ এবং ১১, আদর্শ নগর এবং সিগনেচার ব্রিজের কাছে পুনর্বাসনের কলোনিতে বাস করেন এমন হিন্দুদের সংখ্যাও নেহাত কম নয়।শিশুদের নামকরণে এমন ভাবনা নতুন কিছুই নয় যদিও। শিশুর জন্মের সময় সাহায্যের কারণ হয়ে ওঠা কোনও কিছুর ভিত্তিতে নামকরণ আগেও হয়েছে। ২০১৬ সালে বিহার বন্যার সময় যে শিশুরা জন্মেছিল তাদের অনেকেরই নাম রাখা হয়েছিল নমামি গঙ্গে, গঙ্গাপুত্র ভীষ্ম এবং এনডিআরএফ সিং।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here