news bengali kolkata

Highlights

  • উদ্ধার করা কচ্ছপটি বিরলতম অলিভ রিটলে প্রজাতির
  • বিক্রি করা হয়েছিল ৭,০০০ টাকায়
  • রেস্কিউ সেন্টারে চিকিৎসা চলছে কচ্ছপটির

নিজস্ব প্রতিবেদক, উলুবেড়িয়া: জালে সামুদ্রিক কচ্ছপ ধরা পড়ার পর তা বিক্রি করা হয়েছিল বহুমূল্যে। কিন্তু গ্রামবাসীদের তৎপরতায় সেই কচ্ছপ উদ্ধার করে বনদফতর। বিরাট সাইজের বিরল প্রজাতির কচ্ছপ দেখতে ভিড় জমিয়েছিল স্থানীয়রা।

জেলেদের জালে ধরা পড়েছিল বত্রিশ কেজি ওজনের বিরল প্রজাতির সামুদ্রিক কচ্ছপ। বহুমূল্যে বিক্রি হয়ে যাওয়ার পরেও গ্রামবাসীদের তৎপরতায় কচ্ছপটিকে উদ্ধার করল উলুবেড়িয়া বন দফতর। পুলিশ ও বন দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার সন্ধ্যায় বাগনান থানার দক্ষিণ বেনাপুর গ্রামের বাসিন্দা অষ্ট শী পেশায় জেলে। মাছ ধরতে রূপনারায়ণ নদে জাল ফেলেছিল। সেই সময় তাঁর জালে ‘অলিভ রিটলে’ নামক বিরল প্রজাতির এই বিশালাকার সামুদ্রিক কচ্ছপটি ধরা পড়ে।

তারপরেই সেটি কেনার জন্য এলাকায় হুড়োহুড়ি শুরু হয়ে যায়। শেষ পর্যন্ত বেনাপুরের পার্শ্ববর্তী গ্রাম কিশোরপুরের বাসিন্দা অলক ভৌমিক নামে এক ব্যক্তি ওই জেলের কাছ থেকে ৭০০ টাকা কেজি দরে ১০ কেজির দাম হিসাবে ৭০০০ টাকা দিয়ে কচ্ছপটি কিনে নেয়। কচ্ছপটির ওজন ১০ কেজি ছিল বলে অষ্ট শী নামে ওই জেলেকে জানানো হয়েছিল। যদিও পরে ওজন করে দেখা যায়, কচ্ছপটির ওজন ৩২ কেজি।

কিশোরপুরের গ্রামবাসীরা বিষয়টি জানতে পেরেই বিরল প্রজাতির ওই কচ্ছপটিকে বন দফতরের হাতে তুলে দেওয়ার জন্য অলোকবাবুর উপরে চাপ সৃষ্টি করতে থাকে। সতর্ক করা হয়, বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনে কচ্ছপ মারা বা ভক্ষণ করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। পুলিশ বা বনদফতর জানতে পারলে গ্রেফতার করতে পারে বলেও সতর্ক করা হয়। তারপরেই তিনি কচ্ছপটিকে বন দফতরের হাতে তুলে দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেন।

খবর দেওয়া হয় উলুবেড়িয়া বন দফতরে। এরপরেই বনদফতরের পক্ষ থেকে বিষয়টি বাগনান থানায় জানানো হয়। রবিবার রাতেই বাগনান থানার পুলিশ ওই গ্রামে গিয়ে বিশালাকার কচ্ছপটিকে উদ্ধার করে আনে। রাতেই বন দফতরের কর্মীরা কচ্ছপটিকে শ্যামপুর থানার ৫৮ গেট রেস্কিউ সেন্টারে নিয়ে যান। উলুবেড়িয়া বন দফতরের রেঞ্জ অফিসার উৎপল সরকার বলেন, উদ্ধার করা কচ্ছপ অলিভ রিটলে নামের বিরলতম প্রজাতির সামুদ্রিক কচ্ছপ। এটি ভারত সরকার কর্তৃক বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনে বাঘ-সিংহের মতোই সিডিউল-এ ক্যাটেগরিতে সংরক্ষিত। জানা গিয়েছে উদ্ধার হওয়া কচ্ছপ টি স্ত্রী। প্রাথমিকভাবে কচ্ছপকে রেস্কিউ সেন্টারে সুস্থ করে তোলার পর উপযুক্ত পরিবেশে ছেড়ে দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here