kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, গঙ্গারামপুর: বৃহস্পতিবার দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার কুশমণ্ডি ব্লকের হারাহার মাঠে বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী অর্পিতা ঘোষের সমর্থনে প্রকাশ্য এক জনসভা অনুষ্ঠিত হয়। তাতে যোগ দেন সর্বভারতীয় যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, মন্ত্রী রাজীব ব্যানার্জী, তৃণমূল জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্র সহ একাধিক নেতৃত্ব। ছিলেন অর্পিতাও। এদিনের নির্বাচনী সভা থেকে অভিষেক তীব্র ভাষায় বিজেপি ও নরেন্দ্র মোদিকে সমালোচনায় বিদ্ধ করেন। পাশাপাশি কিভাবে রাজ্যের সাধারণ মানুষের পাশে তৃণমূল ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দাঁড়িয়েছেন তার তুলনা করেন অভিষেক। তিনি রাজ্য বিজেপিকে কটাক্ষ করে বলেন, ‘যে দলের দলীয় পতাকা বাধার লোক নেই তারা স্বপ্ন দেখে রাজ্যের ক্ষমতা দখলের।’ একই ভঙ্গিতে রাজ্যের মন্ত্রী রাজীব ব্যানার্জীও বিজেপি ও নরেন্দ্র মোদীকে আক্রমণ করেন।

বৃহস্পতিবার দুপুর তিনটায় বাগডোগরা বিমানবন্দর থেকে হেলিকপ্টারে কুশমণ্ডির হারাহার মাঠে নামেন অভিষেক ব্যানার্জী। অর্পিতা ঘোষের নির্বাচনী সভায় যোগ দিয়ে প্রথম থেকেই কেন্দ্রীয় সরকার ও বিজেপিকে নিয়ে নানা অভিযোগের তীর ছোড়েন। সাধারণ মানুষের স্বতস্ফুর্থ যোগদান দেখে সকলকে অভিনন্দন জানান অভিষেক।

তারপরেই অভিযোগ তোলেন যে, ‘কেন্দ্র সরকারকে কেউ আজ আর বিশ্বাস করে না। রাজ্যে তৃণমূল ৪২ এ ৪২ই পাবে। মোদিকে সরিয়ে আমরাই বিকল্প সরকার গড়ব। রাজ্যে আর দেশের ভোট নিয়ে অনেক সমীক্ষা চলেছে। তাতে দেখানো হচ্ছে, বলা হচ্ছে, বিজেপি নাকি এগিয়ে আছে। কিন্তু শুনে রাখুন এবারে কোনও সমীক্ষাই কাজ দেবে না। কারণ সাধারণ মানুষ তৃণমূল কংগ্রেসের পাশেই আছেন। এই জেলার তৃণমূল প্রার্থী অর্পিতা ঘোষকে আপনারা জেতান। উন্নয়ন করার দায়িত্ব আমার। সেটা না হয় আমার কাছ থেকেই বুঝে নেবেন।’

এরপরই অভিষেকবাবু বিজেপিকে নিয়ে বলেন, ‘এই রাজ্যে লড়াই মমতা ব্যানার্জী বনাম মোদীর লড়াই। বিজেপি মমতা ব্যানার্জী সরকারের পেছনে ইডি, সিবিআই লাগিয়ে রেখেছে। কিন্তু এতে কোনও লাভ হয়নি। মমতা ব্যানার্জীর আওয়াজ আরো শক্তিশালী হয়েছে। বিজেপি রান্নার গ্যাসের দাম বাড়িয়ে ৭ ষ্টার পার্টি অফিস বানাচ্ছে। হটাৎ করে রান্নার গ্যাসের দাম এখন কমেছে তার কারন ৫ রাজ্যের নির্বাচনে বিজেপি মুখ থুবড়ে পড়েছে। বিজেপি ভারত থেকে বিদায় নিলে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম কমবে বেকারত্ব মিটবে। দেশের কৃষকেরা ন্যায্য দাম পাবে ফসলের। এরা রাম রাম করে চিৎকার করে ভগবান রামকেই কলঙ্কিত করছে। এ রাজ্যে হিন্দুদের জন্য কি করেছেন মোদী সরকার? মমতা ব্যানার্জীর সরকার হিন্দুদের পীঠস্থানের উন্নয়ন যেমন করেছে তেমনি মুসলিম সমাজের মানুষদের জন্য মোয়াজ্জাম ভাতাও দিয়েছে। বাংলা নিয়ে মোদির বড় ভয়। আমরা পার্লামেন্টে পশ্চিমবঙ্গ নামের পরিবর্তন করার জন্য বিল পাঠিয়েছি। তা দু বছর ধরে আটকে রেখে দিয়েছেন। পশ্চিমবঙ্গের নাম পরিবর্তন করে বাংলা নামের পরিবর্তন করছেন না ভয়ে। এ জেলায় বন্যা হয়েছে, ক্ষতিপূরণ দিয়েছে রাজ্য সরকার। কেন্দ্র কিছুই দেয়নি। আপনারা সবসময় অর্পিতাকে পাশে পাবেন। অর্পিতা জেলার উন্নয়নের জন্য সবসময় মমতা ব্যানার্জির কাছে দরবার করেন। এবারেও আপনারা অর্পিতাকে ভোট দিয়ে জেতান জেলার উন্নয়নের জন্য।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here