kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিনিধি: তৃণমূল যুব সভাপতি তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী ব্যাঙ্কক থেকে ফেরার পথে, কলকাতা বিমানবন্দরে ২কেজি সোনা সহ ধরা পড়েছিলেন বলে, বেশ কয়েক দিন ধরেই হাওয়ায় ভাসছিল এমন খবর। সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে এই খবর ভাইরাল হতে বিন্দুমাত্র সময় নেয়নি। প্রায় গোটা সপ্তাহ ধরে রাজ্যের আনাচেকানাচে এই নিয়ে চলতে থাকে মুখরোচক আলোচনা। বিমানবন্দরে আধিকারিকদের সঙ্গে অসহযোগিতা করার জন্য শনিবার একটি অভিযোগও দায়ের করেছে শুল্ক দফতর।

এরপরেই প্রায় দিন সাতেকের নিরবতা ভেঙ্গে রবিবার এই নিয়ে মুখ খুললেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর স্ত্রীকে নিয়ে তৈরি হওয়া বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দিতে এদিন দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলা যুব তৃণমূলের কার্যালয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন অভিষেক। সাংবাদিক সম্মেলনে গোটা বিষয়টিকে কেন্দ্র ও বিজেপির চক্রান্ত বলে দেন অভিযোগ করেন তিনি। এদিন কেন্দ্রীয় শাসকদলকে একহাত নিয়ে রীতিমতো চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন তৃণমূলের যুবরাজ। তিনি বলেন, তাঁর স্ত্রীর ব্যাগে ২কেজি কেন, মাত্র ২গ্রাম সোনা ছিল বলেও যদি প্রমাণ করতে পারে, তাহলে রাজনীতি ছেড়ে দেবেন তিনি। স্ত্রীর বিরুদ্ধে শুল্ক দফতরের সব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে, তাঁর স্ত্রীকেই হেনস্থা করা হয়েছিল বলে পাল্টা অভিযোগ আনেন তৃণমূল সাংসদ।

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগ করেন, তাঁর স্ত্রীর কাছে অন্যায় ভাবে টাকা দাবি করে করা হয়েছিল। সেই টাকা দিতে অস্বীকার করার জন্যই হেনস্থার মুখে পড়তে হয় তাঁকে। রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায় অভিষেকের স্ত্রী বলেই তাঁকে হেনস্থার শিকার হতে হয়েছে বলে অভিযোগ অভিষেকের। এদিন তিনি বলেন, তাঁর সঙ্গে রাজনৈতিক ভাবে পেরে উঠতে না পারাতেই তাঁর স্ত্রীকে টার্গেট করা হয়েছে। সেই কারণে দিল্লির চাপেই এফআইআর করেছে শুল্ক দফতর। অভিষেক বলেন, তাঁর স্ত্রী যদি ২কেজি সোনা নিয়েও আসেন, তাহলে শুল্ক দপ্তর সেই সোনা বাজেয়াপ্ত করল না কেন? তাহলে চৌকিদার কি তখন ঘুমোচ্ছিলেন? তাঁর আরও প্রশ্ন, যদি শুল্ক দপ্তরকে সহযোগিতা না করা হয়, তাহলে বিমানবন্দরের নিরাপত্তার দায়িত্বপ্রাপ্ত সিআইএসএফ জওয়ানদের সাহায্য নেওয়া হল না কেন?

এই গোটা ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ প্রকাশ করার দাবি জানিয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। চ্যালেঞ্জের সুরে বলেছেন, আমি যে কোনও তদন্তের মুখেমুখোমুখি হতে রাজি আছি। যদি সিসিটিভি ফুটেজে দোষ প্রমাণিত হয় আমি রাজনীতি ছেড়ে দেব। পাশাপাশি তাঁর স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়ের থাইল্যান্ডের পাসপোর্ট থাকা নিয়েও মুখ খুলেছেন তৃণমূল যুব সভাপতি। এই নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি সাংবাদিকদের জানান, তাঁর স্ত্রীর জন্মই হয়েছে ব্যাঙ্ককে। তাই জন্মের পর থেকেই তাঁর থাইল্যান্ডের পাসপোর্ট রয়েছে। থাইল্যান্ডের পাসপোর্ট থাকা কি অপরাধ? প্রশ্ন অভিষেকের। যে সব সংবাদমাধ্যম তথ্য যাচাই না করে এই খবর পরিবেশন করেছে, তাদের বিরুদ্ধেও আইনি নেওয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তৃণমূল যুব সভাপতি তথা ডায়মন্ড হারবার কেন্দ্রের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here