kolkata news

Highlights

  • জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ে হামলায় উত্তাল ছাত্র রাজনীতি
  • জেএনইউ কাণ্ডে দায়ী বামেরা, ঐক্য না থাকায় মার খেয়েছে ঐশী, দাবি বঙ্গ এবিভিপির
  • যারা হামলা চালাচ্ছিলেন তারা প্রত্যেকেই ছিলেন এবিভিপি র কর্মী, পাল্টা এসএফআইয়ের

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ে হামলায় উত্তাল হল ছাত্র রাজনীতি। সোমবার দিনভর চলল অভিযোগ, পাল্টা অভিযোগ। এদিন জেএনইউতে হামলার ঘটনার নেপথ্যে বাম ছাত্রদেরই দায়ী করলেন ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদের (এবিভিপি) প্রদেশ সম্পাদক সপ্তর্ষি সরকার। অন্যদিকে সপ্তর্ষি সরকারের অভিযোগের ভিত্তিতে তার পাল্টা সুর চড়ালেন রাজ্য এসএফআই সভাপতি সৃজন ভট্টাচার্য্য সহ কংগ্রেসের কলকাতা ছাত্র পরিষদের সভাপতি অর্ঘ্য গণ।

এদিন জেএনইউ এর ঘটনার প্রসঙ্গে সপ্তর্ষি সরকার বলেন, ‘শুরু থেকেই এই ধরনের পরিস্থিতি বাম ছাত্রদের দ্বারা ক্যাম্পাসে তৈরি করে রাখা হয়েছিল। এই ঘটনার জন্য দায়ী ছাত্রনেতারাই। তাদের নিজেদের মধ্যে ঐক্য না থাকার দরুন এসএফআই নেত্রী ঐশী ঘোষকে মার খেতে হয়েছে।’ তিনি আরও অভিযোগ করে বলেন, ‘কিছুদিন আগেই নতুন ছাত্রছাত্রীদের রেজিস্ট্রেশন চলাকালিন বাম ইউনিটি প্রতিনিয়ত তা বন্ধ করার কাজ করছিল। শেষ দু’দিন ধরে তারা অনেক সেন্টারে ইন্টারনেট বন্ধের মাধ্যমে সেই কাজ পুরোপুরি বন্ধ রাখে। পুনরায় সেই রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া বন্ধ করতে গেলে বাম ইউনিটির ছাত্রদের এবিভিপি-র ছাত্ররা বাধা দেয় । ঠিক সেই সময় থেকেই এবিভিপি-র কার্যকর্তাদের উপর আক্রমণ শুরু করে বাম ইউনিটির সদস্যরা। এই হামলায় এবিভিপি-র ২৫ জন কার্যকর্তা গুরুতর আহত হয়।বর্তমানে তারা দিল্লির এইমস হাসপাতালে ভর্তি। এ ধরনের ঘটনায় যে সব বামপন্থী গুন্ডারা যুক্ত। প্রশাসন তাদের চিহ্নিত করে কঠোর শাস্তি দিক।’

এদিন সপ্তর্ষি সরকারের এই বক্তব্যের প্রেক্ষিতে এসএফআই সভাপতি সৃজন ভট্টাচার্য বলেন, ‘জেএনইউতে যে ঘটনা ঘটেছে ইতিমধ্যেই সেই ঘটনার ভিডিও প্রকাশ হয়েছে। সেই ভিডিও অনুযায়ী প্রায় চিহ্নিত করা গিয়েছে হামলাকারীদের। এখানে দেখা গিয়েছে যারা হামলা চালাচ্ছিলেন তারা প্রত্যেকেই ছিলেন এবিভিপি র কর্মী। তাই সপ্তর্ষি সরকার যাই বলুক তাতে আসল সত্যিটা ঢাকা পড়ে যায় না।’

এদিনে একইভাবে দিলীপ ঘোষের এই বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেন কংগ্রেসের কলকাতার ছাত্র পরিষদের সভাপতি অর্ঘ্য গণ। তিনি বলেন, ‘দিলীপ ঘোষের এই বক্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। কংগ্রেস বরাবরই গান্ধীবাদে বিশ্বাসী। বিভিন্ন কারণে ছাত্ররা প্রতিবাদে নামতে পারেন। কিন্তু সে ক্ষেত্রে তাদের মারের নিদান কে তীব্র ধিক্কার জানাচ্ছি। ইতিমধ্যে জেএনইউ এর হামলার ঘটনাকে ধিক্কার জানিয়ে প্রতিবাদ সভা করেছে যুব কংগ্রেস।’

প্রসঙ্গত, রবিবার সন্ধেয় দিল্লির জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের গার্লস হস্টেলে ঢুকে হামলা চালায় কয়েকদল দুষ্কৃতী। ব্যাট, লাঠি, লোহার রড দিয়ে ছাত্র ছাত্রীদের বেধড়ক মারধর করে বলে অভিযোগ ওঠে। মেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয় বাম ছাত্র সংসদ সভাপতি ঐশী ঘোষ-সহ একাধিক বাম ছাত্র নেতা- কর্মীদের। এই হামলায় গুরুতর জখম হন বেশ কয়েকজন। এমনকি গুরুতর ভাবে আহত হন অধ্যাপিকা সুচরিতা সেন। জানা গিয়েছে হামলাকারীদের প্রত্যেকের মুখই ছিল কালো কাপড় দিয়ে ঢাকা। এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই নিন্দার ঝড় উঠেছে গোটা দেশজুড়ে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here