aishe bengali news

Highlights

  •  ঐশী ঘোষের সভায় আপত্তি তুলল এবিভিপি
  • তাদের আপত্তি প্রতিষ্ঠানের ভিতরে বহিরাগত কাউকে এনে এই সভা করার ব্যাপারে
  • আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারি যাদবপুরের ছাত্র নির্বাচন

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে জেএনইউ-এর ছাত্র সংগঠনের নেত্রী ঐশী ঘোষের সভায় আপত্তি তুলল এবিভিপি। তাদের আপত্তি প্রতিষ্ঠানের ভিতরে বহিরাগত কাউকে এনে এই সভা করার ব্যাপারে। সূত্রের খবর, এই সভা আটকাতে তাই ইতিমধ্যেই কোমর বাঁধতে শুরু করেছে অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ।

এদিকে আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারি যাদবপুরের ছাত্র নির্বাচন। ২০১৭ সালের পর তিন বছর পেরিয়ে গিয়ে যাদবপুরে ছাত্র নির্বাচন হতে চলেছে। এই অবস্থায় ঐশীকে দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে এই সভা করানোর একটি বিশেষ গুরুত্ব আছে বলে মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহল। আর এই কারণেই ঐশীর সভায় বাধা দিতে চাইছে এবিভিপি। তাদের কথায়, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে বাইরের কাউকে এনে সভা করানো যায় না।’ যদিও, এসএফআই এর যুক্তি, ‘ঐশী যাদবপুরের ছাত্রী না হলেও অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী, তাই একজন ছাত্র নেতা বা নেত্রী বা একজন ছাত্রী অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে আসতেই পারেন। সেটা তার অধিকার। আসলে ঐশীকে ভয় পেয়েই এই আচরণ এবিভিপির।’

এদিকে তিন বছর আগেও যে ছাত্র সংসদ নির্বাচন হয়েছিল সেখানেও এবিভিপি একটি পদেও প্রার্থী দিতে পারেনি। এবছর সেই রেকর্ড ভেঙে বিশ্ববিদ্যালয়কে ইনস্টিটিউট অফ এনিমেনস-এর আওতায় আনতে হবে, বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিকাঠামো গত উন্নয়ণ করতে হবে, বিশ্ববিদ্যালয়ে স্মার্ট ক্লাসের ব্যবস্থা করতে হবে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ক্যাম্পাসেই ছাত্রীদের জন্য স্যানিটারি ন্যাপকিন ভেন্ডিং মেশিন বসাতে হবে, এই পাঁচ দফা দাবি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভোট লড়তে চলেছে এবিভিপি। এদিকে বেশ কিছুদিন ধরেই সেখানে কেন্দ্র বিরোধী আন্দোলন চলছে। এমতবস্থায় বাকপটু ঐশীর সভা যে বাম ছাত্রদের আরো চাঙ্গা করবে তা বলাই বাহুল্য।

অন্যদিকে, গতকাল ঐশীকে ভিতরে ঢুকে সভা করতে দেয়নি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ও। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের দাবি ছিল, যেহেতু ঐশী ঘোষ কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী নন, সেহেতু বহিরাগত হিসেবে তাঁকে ক্যাম্পাস চত্বরে সভা করতে দেওয়া ‘ঐতিহ্য-বিরোধী’। এই একই সুরে দাবি তুলে যাদবপুরেও ঐশীকে সভা করতে দিতে চাইছে না এবিভিপিও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here