ac trally

মহানগর ডেস্ক: তিন মাসের ওপর নয়া কৃষি আইনের বিরোধিতা করে দিল্লির সীমান্তে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। নয়া কৃষি আইন বাতিল না হওয়া অবধি কৃষকরা বিক্ষোভ চালিয়ে যাবেন, তা তাঁরা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু দিল্লিতে ঠান্ডার মতন গরমও পড়ে প্রবল। সেই গরমে আন্দোলন চালিয়ে যেতে প্রস্তুত হচ্ছেন তাঁরা। কৃষকদের প্রবল গরমের মধ্যে আন্দোলন চালিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আসছে এসি ট্রলি। সেই ট্রলিতে একটা কেবিনও থাকবে বলে জানা গিয়েছে।

আন্দোলনরত কৃষকদের গরম থেকে রেহাই দিতে পঞ্জাবে তৈরি হচ্ছে এসি কেবিন। সম্প্রতি সেই ট্রলি এসি কেবিনের একটি ভিডিও প্রকাশ্যে এসেছে। সেখানে দেখা গিয়েছে, এসি মেশিনেক পাশাপাশি রয়েছে একটি বেসিন ও জলের ট্যাঙ্ক। একটি প্রক্রিয়াটি সৌরচালিত ব্যাটারির মাধ্যমে পরিচালিত হবে বলে জানা গিয়েছে। ট্রলির ভিতরটা উচ্চমানের জিনিস তৈরি হয়েছে। এই ট্রলির কাজ মোটামুটি সম্পন্ন হয়ে গিয়েছে। শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি চলছে।

দিল্লিতে গ্রীষ্মে প্রবল গরম পড়ে। সেই তাপমাত্রার পারদ ৪০ ডিগ্রি পেরিয়ে যায়। এই বছর ফেব্রুয়ারি যথেষ্ট উষ্ণ ছিল। আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, এর আগে ১৯০১ সালে ফেব্রুয়ারি মাসে এই রকম গরম ছিল দিল্লি। ফেব্রুয়ারি মাস দেখে আন্দাজ করা যায়, গ্রীষ্মে পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়াতে পারে। তারমধ্যে সম্প্রতি আবহাওয়া দফতর মার্চ থেকে মে মাস পর্যন্ত আবহাওয়ার পূর্বাভাস দিয়েছে। সেখানে জানানো হয়েছে, আগামী তিন মাস স্বাভাবিকের থেকে তাপমাত্রা বেশি থাকবে।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ২৬ নভেম্বর থেকে কৃষকরা দিল্লির সীমান্তে আন্দোলন করছেন কৃষি আইনের বিরোধিতা করে। প্রবল ঠান্ডার সময় বিভিন্ন জায়গা থেকে গরম কাপড়, মোজা ও হিটার দিয়ে কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন দেশের মানুষ। প্রবাসী ভারতীয়রাও নানাভাবে সেই সময় কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। এবার দিল্লির দাবদাহ থেকে কিছুটা স্বস্তি দিতে পাশে দাঁড়াচ্ছে সাধারণ সাধারণ মানুষ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here