ডেস্ক: শহরের তিন পৃথক জায়গায় এদিন তিনটি দুর্ঘটনার খবর পাওয়া গেল। উল্টোডাঙার মুচিবাজারে সোমবার রাতে বাসের ধাক্কায় দুই কিশোরের মৃত্যুর পর ওই একই এলাকায় এবার গাড়ির ধাক্কায় প্রাণ গেল এক যুবকের। একই এলাকায় পরপর দুর্ঘটনার জেরে প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। এই দুর্ঘটনার পর এলাকাবাসী রাস্তায় মৃতদেহ ফেলে রেখে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে যে, মঙ্গলবার রাত ১১টা নাগাদ ওই যুবক মুচিবাজার এলাকা দিয়ে রাস্তা পার হচ্ছিলেন। ঠিক সেইসময় প্রচণ্ড গতিতে আসা একটি গাড়ি পথচারী ওই যুবককে ধাক্কা মেরে পালিয়ে যায়। পরে যুবকটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। স্থানীয়দের জানিয়েছেন, গাড়ি ধাক্কা মারার পরও দীর্ঘক্ষণ রাস্তাতেই পড়ে ছিলেন ওই যুবক। উদ্ধার করার জন্য কোনও পুলিশকর্মী সামনে এগিয়েও আসেনি। ঘটনার তদন্ত করছে পুলিশ।

অন্যদিকে বুধবার সকালে মর্নিং ওয়াক করতে গিয়ে এক বেপরোয়া গাড়ির ধাক্কায় মৃত্যু হল এক বৃদ্ধার। মৃতের নাম রাধারানী হালদার(৬২)। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ কলকাতার রাসবিহারী এলাকায়। মোড়ের ধারেই তিনি দাঁড়িয়ে ছিলেন। সেইসময় অপর একটি বাসের সঙ্গে রেষারেষি করতে গিয়ে দেশপ্রিয় পার্কগামী একটি বাস এসে ওই প্রৌঢ়াকে ধাক্কা মারে। গুরুতর আশঙ্কাজনক অবস্থায় বৃদ্ধাকে এমআর বাঙুর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে।

আরেকদিকে, বৃষ্টিতে স্কুটার পিছলে মৃত্যু হল দুই যুবকের। আহত হয়েছে ১ জন। ঘটনাটি ঘটেছে এজিসি বোস রোডের ফ্লাই ওভারের নিচে। মৃতরা মৌলালির দিকে যাচ্ছিল বলে খবর পাওয়া গেছে। পুলিশ এসে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা আরোহীদের মধ্যে দুজনকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। একজনের অবস্থা সংকটজনক। বারবার এরকম এরকম দুর্ঘটনার খবর উঠে আসায় পথ নিরাপত্তা ব্যবস্থা এবং পুলিশি ভুমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here