ডেস্ক: নতুন মরশুমের শুরুতেই সদ্য বিশ্বকাপ খেলে আসা কোস্টারিকান ডিফেন্ডার অ্যাকোস্তাকে নিয়ে সব প্রতিপক্ষকে চমকে দিয়েছিল ইস্টবেঙ্গল। বিশ্বকাপারকে টপকে লাল-হলুদ জালে কীভাবে বল জড়াবে তা নিয়ে বেশ চিন্তায় ছিল বাকি দল গুলি। কিন্তু দিনের পর দিন অ্যাকোস্তা না নামায় চিন্তার ভাঁজ কমছিল বাকি দলগুলির। কিন্তু শেষমেশ ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের রক্তচাপ কমিয়ে অনুশীলনে নেমে পড়লেন লাল-হলুদের নতুন নয়নের মণি।

এক সপ্তাহ আগে শহরে এসে গেছিলেন। তবু কাগজ পত্রের জটিলতার জেরে প্রাকটিসেও নামছিলেন না অ্যাকোস্তা। তবে সেই সমস্যা মেটায় গতকাল থেকেই টিডি সুভাষ ভৌমিকের তত্ত্বাবধানে গা ঘামাতে মাঠে নেমে পড়লেন তিনি। কয়েক দিন ধরে জিমও করছিলেন। দোভাষী না থাকায় গুগল ট্রান্সলেটরের মাধ্যমে তাঁকে সব কায়দাকানুন বোঝাতে হল সুভাষকে।

প্রথমবার ইস্টবেঙ্গল মাঠে নেমে বেশ খুশি অ্যাকোস্তা। তিনি যে ম্যাচ ফিট আছেন তাঁর মুভমেন্ট দেখেই বোঝা যাচ্ছিল। ভাষা সমস্যা থাকলেও আকারে ইঙ্গিতে সতীর্থদের সাথে বোঝাপড়া করে নিচ্ছিলেন। তবে কালকের এরিয়ান ম্যাচে শুরু থেকে থাকছেন না তিনি। পরে পরিবর্ত হিসাবে মাঠে নামতে পারেন তিনি। ২ সেপ্টেম্বরের ডার্বির আগে দলের সাথে তাঁকে পুরোপুরি মানিয়ে দিতে চান সুভাষ।

প্রসঙ্গত, লিগ জয়ের ট্রিপল হ্যাট্রিক করতে আগামীকাল এরিয়ানের মুখোমুখি হচ্ছে লাল-হলুদ। গতম্যাচের মত এই ম্যাচেও আগ্রাসী ফুটবল খেলতে চাইছে দল। কাস্টমস ম্যাচে পয়েন্ট নষ্ট করে কিছুটা ব্যাকফুটে চলে গেছিল মশাল বাহিনী। কিন্তু গতকাল মোহনবাগানও পয়েন্ট নষ্ট করায় ফের একবার আশার আলো লাল-হলুদে। এদিনও হয়ত শুরু থেকেই আমনাকে দলে রাখবেন সুভাষ।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here