ডেস্ক: কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর থেকেই যেন দুঃসময় শুরু হয়ে হয়েছে সলমান খানের। কিন্তু বলিউডের ভাইজানের দুঃসময় যে তাঁর উকিলকেও তাড়া করে বেড়াচ্ছে। যোধপুর জেলে বন্দি সলমনের উকিল মহেশ বোরা এবার অভিযোগ তুলেছেন যে তাঁকে কেস ছাড়ার জন্য হুমকি দেওয়া হচ্ছে। সলমনের উকিল মহেশ জানান যে বৃহস্পতিবার রাত থেকে তাঁর ফোনে ধমকের সুরে কল এবং মেসেজ আসছে। প্রসঙ্গত, যোধপুরের সেশন কোর্টে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর থেকে গরাদের পিছনেই রয়েছেন সল্লু ভাই। তিনি আদৌ জামিন পাবেন কিনা তা শনিবারের আগে জানা সম্ভব হবে না।

সলমনের উকিল সংবাদ মাধ্যমকে জানান, কেসের শুনানিতে উপস্থিত না থাকার জন্য হুমকি দেওয়া হয়েছে মহেশকে। সংবাদ সূত্রে খবর, মহেশের দাবি যে গ্যাংস্টার রবি পূজারী তাঁকে এই হুমকি দিয়ে যাচ্ছে এবং প্রাণে মেরে ফেলারও হুমকি দিয়েছে সে। যোধপুর পুলিশের কমিশনারকেও বিষয়টি জানিয়েছেন তিনি।

উল্লেখ্য, ১৯৯৮ সালে হাম সাথ সাথ হ্যায় ছবির শুটিংয়ে যোধপুর গিয়েছিলেন সলমন, সেফ আলি খান, তব্বু, নীলম ও সোনালি বেন্দ্রে। সেখানেই শুটিং চলাকালীন ১ ও ২ অক্টোবর রাতে কাঙ্কানি গ্রামে আলাদা আলাদা দুটি জায়গায় কৃষ্ণসার হরিণ শিকার করা হয়। সেই ঘটনায় অভিযোগ ওঠে সলমন খান সেফ আলি খান, তব্বু, নীলম ও সোনালি বেন্দ্রের বিরুদ্ধে। যোধপুর আদালতে বন্য পশু সংরক্ষণ আইনের ৫১ নম্বর ধারায় মামলা চলে তাঁদের বিরুদ্ধে। গত ২০ বছর ধরে চলা এই মামলায় তিনটি মামলায় সলমন মুক্তি পেলেও চতুর্থ মামলায় দোষী সাব্যস্ত করে ৫ বছরের সাজা ঘোষণা করা হয় বলিউড সুপারস্টারকে। অন্যদিকে বেকসুর খালাস করা হয় সেফ আলি খান সহ বাকি তিন অভিনেত্রীকে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here